চালের দাম বাড়ছে

নির্বাচনের আগে আগে সারা দেশে চালের দাম বাড়তে থাকে। পরিবহন সংকটের কথা বলে সে সময় চালের দাম বাড়িয়ে দেন ব্যবসায়ীরা। মূল্যবৃদ্ধির এ ধারা এখনো অব্যাহত আছে। মিল মালিকরাও চালের দাম বাড়িয়ে দিয়েছেন। এর প্রভাব পড়েছে পাইকারি ও খুচরা বাজারে। 

১০ দিনের ব্যবধানে মিল পর্যায়ে চালের দাম বেড়েছে বস্তায় (৫০ কেজি) ২১০-২৫০ টাকা বা মণপ্রতি ১৫৮-১৮৭ টাকা। মিল পর্যায়ে মূল্যবৃদ্ধির প্রভাব পাইকারিতে পুরোপুরি পড়তে আরো কিছুটা সময় লাগবে। তার পরও এরই মধ্যে পাইকারিতে ৫০ কেজির প্রতি বস্তা চালের দাম ১২০-১৪৫ বা মণপ্রতি ৯০-১১০ টাকা বেড়েছে। আর খুচরা পর্যায়ে বেড়েছে কেজিতে ৪ টাকা পর্যন্ত।

মূল্যবৃদ্ধির কারণ হিসেবে এতদিন লোকসানে চাল বিক্রির কথা বলছেন মিল মালিকরা। মিল পর্যায়ে মূল্যবৃদ্ধির পাশাপাশি পরিবহন ভাড়া বৃদ্ধিকেও কারণ হিসেবে উল্লেখ করছেন পাইকারি ব্যবসায়ীরা। সরকারিভাবে চাল সংগ্রহকে আরেকটি কারণ হিসেবে দেখছেন তারা।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, দিন দশেক আগে হাসকিং মিলে ৫০ কেজি ওজনের প্রতি বস্তা মিনিকেট চালের দাম ছিল ১ হাজার ৭৮০ থেকে ১ হাজার ৮০০ টাকা। একই চাল গতকাল বিক্রি হয়েছে ২ হাজার ২৩ টাকায়। এ হিসাবে মিল পর্যায়ে প্রতি বস্তা মিনিকেট চালের দাম বেড়েছে সর্বোচ্চ ২৪০ টাকা।

এছাড়া অটো রাইস মিলে ১০ দিন আগে প্রতি বস্তা (৫০ কেজি) মিনিকেট চালের দাম ছিল ২ হাজার ২০০ টাকা। বর্তমানে তা সর্বোচ্চ ২ হাজার ৪১০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। এ হিসাবে অটো রাইস মিল পর্যায়ে মিনিকেট চালের দাম বেড়েছে বস্তায় ২১০ টাকা। তবে সবচেয়ে বেশি দাম বেড়েছে মোটা চালের, প্রতি বস্তায় (৫০ কেজি) ২৫০ টাকা। দিন দশেক আগে মিল পর্যায়ে প্রতি বস্তা মোটা চাল ৯৩৩ টাকায় বিক্রি হলেও এখন বিক্রি হচ্ছে ১ হাজার ৫০০ টাকায়।

মন্তব্য লিখুন :