জাবিতে ছাত্রের মৃত্যু, পহেলা বৈশাখের উৎসবে শোকের ছায়া

এক ছাত্রের আকস্মিক মৃত্যুতে শোক ছুঁয়েছে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের পহেলা বৈশাখের উৎসবকে। বাতিল করা হয়েছে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের আয়োজনের কেন্দ্রীয় মঙ্গল শোভাযাত্রা। এদিকে, ওই ছাত্রের মৃত্যুতে বিশ্ববিদ্যালয়ের চিকিৎসা কেন্দ্রে পর্যাপ্ত সুচিকিৎসার ব্যবস্থা না থাকাকে দায়ী করে কর্মসূচি পালন করছে শিক্ষার্থীরা।

শনিবার (১৩ এপ্রিল) রাতে ইংরেজি বিভাগের ৪৫তম আবর্তনের ছাত্র নুরুজ্জামান নিভৃত (২২) হৃদযন্ত্রের ক্রিয়া বন্ধ হয়ে মারা যান।

এনাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের চিকিৎসক ডা. হরনাথ সরকার বলেন, শ্বাসকষ্ট থেকে হৃদযন্ত্রের ক্রিয়া বন্ধ হয়ে নুরুজ্জামানের মৃত্যু হয়।

বিশ্ববিদ্যালয়ের চিকিৎসা কেন্দ্র সূত্রে জানা যায়, সন্ধ্যা সাতটার দিকে বুকে ও পেটে ব্যথা নিয়ে চিকিৎসা কেন্দ্রে যান নুরুজ্জামান। কর্তব্যরত চিকিৎসক ড. তরিকুল ইসলাম তাকে প্রাথমিকভাবে গ্যাস্ট্রিকের চিকিৎসা দেন। এতে ব্যথা না কমলে তাকে সাভারের এনাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়ার পরামর্শ দেন তিনি। পরে রাত সোয়া নয়টার দিকে তাকে অ্যাম্বুলেন্সে করে এনাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়। কিন্তু পথেই তার মৃত্যু হয়।

বিশ্ববিদ্যালয়ের চিকিৎসা কেন্দ্রের চিকিৎসক ড. ইনামুর রশিদ বলেন, আমরা শুরু থেকেই বারবার রোগীকে এনাম মেডিকেলে নিয়ে যাওয়ার জন্য বলেছি। ‘লোক আসছে’ বলে তার বান্ধবী কালক্ষেপণ করেছে। রোগীর অবস্থা অবনতির দিকে গেলে রাত নয়টার পরে তাকে জোরপূর্বক এনাম মেডিকেলে পাঠানো হয়।

এদিকে নুরুজ্জামানের মৃত্যুতে বিশ্ববিদ্যালয়ে শোকের ছায়া নেমে এসেছে। সকাল দশটায় কেন্দ্রীয়ভাবে মঙ্গল শোভাযাত্রা হওয়ার কথা থাকলেও সেটি বাতিলের ঘোষণা দেন উপাচার্য অধ্যাপক ফারজানা ইসলাম।

বিশ্ববিদ্যালয়ের নতুন কলা ও মানবিকী অনুষদ এবং ইংরেজি বিভাগ তাদের সকল অনুষ্ঠান বাতিল করেছে।

এদিকে নুরুজ্জামানের মৃত্যুতে বিশ্ববিদ্যালয়ের চিকিৎসা কেন্দ্রে পর্যাপ্ত সুচিকিৎসার ব্যবস্থাকে দায়ী করে শহীদ মিনারে অনির্দিষ্টকাল অবস্থান কর্মসূচি পালন করছে পাঁচ শিক্ষার্থী। সুযোগ-সুবিধা বৃদ্ধির দাবিতে শহীদ মিনারে মানববন্ধনও হয়েছে। মানববন্ধন শেষে শিক্ষার্থীদের একটি দল দাবি আদায়ে চিকিৎসা কেন্দ্রে যান।

মন্তব্য লিখুন :