ইবি ছাত্রলীগের দুই গ্রুপের হাতাহাতি

ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের কমিটি ১৫ দিন মেয়াদ পূর্ণ করার আগেই উত্তেজনা ছড়িয়েছে।

বৃহস্পতিবার মধ্যরাতে হাতাহাতি হয় সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের কর্মীদের মধ্যে। এতে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে আবাসিক হলগুলোতে। তবে বিষয়টিকে সামান্য ভুল বোঝাবুঝি বলছে নেতারা।

প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা যায়, বৃহস্পতিবার শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক রাকিবুল ইসলাম রাকিবের অনুসারী ছাত্রলীগ নেতা জুবায়ের আল মাহমুদ আবাসিক হলগুলোতে গিয়ে শিক্ষার্থীদেরকে তার গ্রুপে যোগ দিতে বলে। একপর্যায়ে সে লালন শাহ হলের ১১৩ নম্বর রুমে গিয়ে একই কথা বলতে থাকে। ফলে লালন শাহ হলে অবস্থানরত সভাপতি রবিউল ইসলাম পলাশের অনুসারীদের মাঝে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে।

তারা উত্তেজিত অবস্থায় জিয়া মোড়ে অবস্থান নেয়। পরিস্থিতি শান্ত করতে সবাইকে স্ব-স্ব হলে ফিরে যেতে বলে উভয় গ্রুপের নেতারা। এ সময় সাধারণ সম্পাদক গ্রুপের নেতা মিজানুর রহমান শহীদ জিয়াউর রহমান হলের বাইরে সভাপতি গ্রুপের অনুসারীদের দেখে তাদের গালিগালাজ করতে থাকে। এ সময় একই হলের সভাপতি গ্রুপের কর্মী ইমানুল রায়হান ও বাঁধনকে সে ধাক্কা মারে।

রায়হান বলেন, আমরা হলে ফেরার সময় মিজান আমাদের পেছন থেকে গালি দিতে থাকে। এরপর সে আমাকে ধাক্কা মেরে ফেলে দেয় এবং মারতে আসে।' এ ঘটনায় জিয়া হল- লালন শাহ হলসহ সভাপতি গ্রুপের কর্মীরা ক্ষুব্ধ হয়ে উঠে।

লালন শাহ হলের নেতাকর্মীরা উত্তেজিত অবস্থায় হলের সামনে অবস্থান নেয়। অপরদিকে জিয়া হলের সামনে জিয়া হল ও অন্যান্য হলের নেতাকর্মীরা অবস্থান নিয়ে স্লোগান দিতে থাকে। এদিকে জিয়া মোড় এলাকায় সাধারণ সম্পাদক গ্রুপের নেতা-কর্মীরা অবস্থান নেয়। এমতাবস্থায় ক্যাম্পাসে উত্তেজনাকর পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়।

পরে বিশ্ববিদ্যালয়ের সহকারী প্রক্টর মো. নাসিমুজ্জামান ঘটনাস্থলে আসেন। এ সময় দুই গ্রুপের নেতারা পরিস্থিতি শান্ত করেন এবং সবাইকে স্ব-স্ব হলে ফিরে যেতে বলেন।

এ বিষয়ে সাধারণ সম্পাদক রাকিবুল ইসলাম রাকিবকে বারবার ফোন দেওয়া হলের তার সাথে যোগাযোগ করা সম্ভব হয়নি।

জানতে চাইলে শাখা সভাপতি রবিউল ইসলাম পলাশ বলেন, তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে সামান্য ভুল বোঝাবুঝি হয়েছে। ক্যাম্পাস এখন পুরোপুরি শান্ত আছে।

উল্লেখ্য, গত ১৪ জুলাই ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের স্থগিতকৃত কমিটিকে বিলুপ্ত করে নতুন কমিটি ঘোষণা দেয় কেন্দ্র। ২ সদস্য বিশিষ্ট কমিটিতে আগামী ১ বছরের জন্য রবিউল ইসলাম পলাশকে সভাপতি ও রাকিবুল ইসলাম রাকিবকে সাধারণ সম্পাদক হিসেবে ঘোষণা দেওয়া হয়।

মন্তব্য লিখুন :