ভুল ইনজেকশন পুশে ৪৬ দিন ধরে কোমায় শিক্ষার্থী, ডাক্তার-নার্স কারাগারে

গোপালগঞ্জে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী মরিয়ম সুলতানা মুন্নিকে ভুল ইনজেকশন পুশ করার অভিযোগে অভিযুক্ত ডাক্তার ও নার্সের জামিন আবেদন বাতিল করে জেলহাজতে পাঠানোর নির্দেশ দিয়েছেন আদালত।

রবিবার অভিযুক্ত ডাক্তার তপন কুমার মন্ডল ও নার্স কুহেলিকা গোপালগঞ্জ সদর আমলি আদালতে হাজির করা হলে বিজ্ঞ বিচারক হুমায়ুন কবীর তাদের জামিন আবেদন বাতিল করে জেলহাজতে পাঠানোর নির্দশ দেন।

এর আগে অভিযুক্ত চিকিৎসক ও দুই নার্স হাইকোর্ট থেকে ৮ সপ্তাহের জন্য জামিন নেন। জামিনের সময় শেষ হওয়ায় ডাক্তার তপন ও নার্স কুহেলিকা রবিবার নিম্ন আদালতে হাজির হলে তাদের জামিন বাতিল করা হয়। অন্যদিকে, অভিযুক্ত অপর নার্স শাহনাজ পারভিন আদালতে হাজির হন নাই।

প্রসঙ্গত: গত ২০ মে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রী মুন্নীকে গোপালগঞ্জ ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালে পিত্তথলির পাথর অপারেশন করার আগে কর্তব্যরত নার্স গ্যাসের ইনজেকশনের পরিবর্তে ভুল করে অতিরিক্ত মাত্রায় অজ্ঞান হবার ইনজেকশন পুশ করেন। আর এই ভুল চিকিৎসায় অজ্ঞান হয়ে পড়েন ওই ছাত্রী। সেই থেকে মুন্নি অচেতন অবস্থায় চিকিৎসাধীন রয়েছে।

ভুল ইনজেকশন পুশ করার দেড় মাস পার হয়ে গেলেও ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের (ঢামেক) আইসিইউতে অজ্ঞান অবস্থায় রয়েছে সমাজ বিজ্ঞান বিভাগের ২য় বর্ষেও ওই ছাত্রী মরিয়ম সুলতানা মুন্নি।

মন্তব্য লিখুন :