অটোরিক্সায় যৌন নির্যাতনের বর্ণনা দিল রুয়েট শিক্ষার্থী

ক্যাম্পাস থেকে অটোরিক্সায় করে বাসায় ফেরার পথে যৌন হয়রানির শিকার হয়েছেন বলে অভিযোগ করেছেন রাজশাহী প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (রুয়েট) এক শিক্ষার্থী।

এ ঘটনায় মঙ্গলবার রাত ১০টার দিকে নগরীর বোয়ালিয়া মডেল থানায় অজ্ঞাতপরিচয় পাঁচজনকে আসামি করে মামলা করেছেন ওই শিক্ষার্থী।

সোমবার বিকালে ফেসবুকে একটি স্ট্যাটাস দেন রুয়েটের ওই ছাত্রী। পোস্টে ওই শিক্ষার্থী লিখেছেন, গত সোমবার বিকালে রুয়েট থেকে বাসায় ফিরতে তিনি অটোতে ওঠেন। অটোতে রুয়েটের আরো দুই সিনিয়র শিক্ষার্থী এবং একজন অপরিচিত ব্যক্তি ছিলেন। কিছুটা পথ যাওয়ার পর রুয়েটের দুই শিক্ষার্থী নেমে যান। এরপর শুধু ওই অপরিচিত ব্যক্তি থাকেন। কিছুদূর যাওয়ার পর চালক ওই ব্যক্তিকে নামিয়ে দেন।

তিনি লেখেন, এরপর অটোতে উঠে চালকের পরিচিত চারজন লোক। তখন অটোর ভেতর তাকে যৌন হয়রানি করা হয়। তিনি চিৎকার করতে থাকলে চালক হাসছিলেন। নগর ভবনের সামনে পুলিশ দাঁড়িয়ে থাকতে দেখে ওই চার ব্যক্তি তাঁকে অটোরিক্সা থেকে ধাক্কা মেরে ফেলে দিয়ে পালিয়ে যায়।

তিনি আরও লেখেন, যতক্ষণে নিজের পায়ে দাঁড় হতে পেরেছি, ততক্ষণে অটো বহুদূর। কাহিনীটা শুধু শেয়ার করলাম। এইটা বাংলাদেশ, কোনো বিচারের আশা আমি করছি না। অনেকের মনে প্রশ্ন আসতে পারে আমার পোশাক কী ছিল? সাধারণ বাঙালি নারীর মতো সালোয়ার-কামিজ।

এ ঘটনা নিয়ে মঙ্গলবার রাতে থানায় মামলা করেছেন ওই শিক্ষার্থী। তবে তাঁর আগে তাঁকে জিজ্ঞাসাবাদ করেছেন রাজশাহী মহানগর পুলিশের গোয়েন্দা শাখার (ডিবি) কর্মকর্তারা।

মহানগর ডিবি পুলিশের উপকমিশনার আবু আহাম্মদ আল মামুন বলেন, মঙ্গলবার তাঁকে নগর ডিবি পুলিশের কার্যালয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। এরপরই থানায় একটি মামলা দায়ের করার সিদ্ধান্ত হয়।

বোয়ালিয়া মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কমকর্তা (ওসি) নিবারণ চন্দ্র বর্মণ বলেন, মামলায় অজ্ঞাতনামা পাঁচজনকে আসামি করা হয়েছে। এদের মধ্যে একজন অটোরিকশাচালক এবং অন্যরা অটোচালকের পরিচিত।

মন্তব্য লিখুন :