ফাহাদ হত্যার বিচারের দাবিতে ইবিতে মহাসড়ক অবরোধ

বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) শিক্ষার্থী আবরার ফাহাদের হত্যাকারীদের উপযুক্ত শাস্তির দাবিতে মহাসড়ক অবরোধ করেছে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের সাধারণ শিক্ষার্থীরা।

সোমবার (৭ অক্টোবর) বেলা তিনটায় বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান ফটক সংলগ্ন কুষ্টিয়া-খুলনা মহাসড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ করে তারা।

জানা যায়, বুয়েট শিক্ষার্থী আবরার ফাহাদকে গতকাল রবিবার দিবাগত রাত তিনটার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের শের-ই-বাংলা হলের নিচতলা থেকে তার লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। সে বিশ্ববিদ্যালয়ের ইলেক্ট্রিক্যাল অ্যান্ড ইলেক্ট্রনিক ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের ২য় বর্ষের শিক্ষার্থী। 

ফেসবুকে স্ট্যাটাসের জেরে ছাত্রলীগের নেতা-কর্মীদের উপর্যুপরি আঘাতে মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়েন আবরার বলে জানা গেছে। তার বাড়ি কুষ্টিয়া শহরের পিটিআই মোড় এলাকায়। 

সোমবার সকালে আবরার নিহতের খবর ছড়িয়ে পড়লে ফুঁসে ওঠে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা। হত্যাকারীদের বিচারের দাবিতে দুপুর আড়াইটার দিকে ক্যাম্পাসের জিয়া হল মোড় থেকে বিক্ষোভ মিছিল বের করে তারা। মিছিলটি বিভিন্ন হলের সামনে দিয়ে প্রদক্ষিণ করে ক্যাম্পাসের প্রধান ফটক সংলগ্ন কুষ্টিয়া-খুলনা মহসড়কে গিয়ে অবস্থান নেয়। 

এসময় গাড়ি চলাচল বন্ধ হলে তীব্র যানজটের সৃষ্টি হয়। আধাঘন্টার বেশি সময় ধরে মহাসড়ক অবরোধ করে রাখে শিক্ষার্থীরা। এসময় ‘আমার ভাই কবরে খুনিরা কেন বাইরে,’ সহ বিভিন্ন স্লোগানে দিতে থাকে তারা। তারা ভ্যান ও মই আড় করে বেরিকেড দিয়ে রাখে মহাসড়ক। আন্দোলনের একপর্যায়ে বিক্ষোভ সমাবেশ করে শিক্ষার্থীরা। 

এসময় বক্তারা বলেন, আগামী ২৪ ঘন্টার মধ্যে আবরার হত্যাকারীদের গ্রেপ্তার করে বিচার নিশ্চিত না করলে সাড়া দেশে একযোগে আন্দোলনে নামবে সাধারণ শিক্ষার্থীরা।

পরে সাড়ে তিনটার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের সহকারী প্রক্টর ড. নাসির উদ্দিন আজহারী ও ইবি থানার ওসি জাহাঙ্গীর আরিফ অবরোধস্থলে আসেন। এসময় শিক্ষার্থীদের জরুরী পরিবহনগুলো যাতায়াতের ব্যবস্থা করে দিতে দেখা গেছে। 

পরে স্থানীয় সাংসদ ও আওয়ামীলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব-উল-আলম হানিফ সড়কে আটকা পড়ে আছেন এমন খবর শুনে শিক্ষার্থীরা তার সম্মানার্থে অবরোধ তুলে নেয়।

মন্তব্য লিখুন :