বাউফলে শিশুকে গণধর্ষণ করে ভিডিও ধারণ, রফার চেষ্টা ইউপি সদস্যের

পটুয়াখালীর বাউফলে দুই যুবকের দ্বারা গণধর্ষণের শিকার হয়েছে ১২ বছরের এক স্কুলছাত্রী। পরে সোহেল খান নামের এক ইউপি সদস্য বিষয়টি ৮০ হাজার টাকায় মীমাংসার চেষ্টা করলে খবর পেয়ে পুলিশ এক ধর্ষককে গ্রেপ্তার করে।

গত শনিবার উপজেলার সাবপুরা গ্রামে ধর্ষণের ঘটনাটি ঘটে। পরে মঙ্গলবার রাতে পুলিশ এ ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে সরফুদ্দিন নামের এক ধর্ষককে গ্রেপ্তার করে।

সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, গত শনিবার রাতে কলতা গ্রামের আকবর আলীর ছেলে সরফুদ্দিন ও বকুল মিয়ার ছেলে সোহাগ ওই শিশুকে একা পেয়ে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে এবং ধর্ষণের দৃশ্য মোবাইল ফোনে ধারণ করে। এ ঘটনা কাউকে জানালে ধারণকৃত ভিডিও ফেসবুকে ছেড়ে দেয়া হবে বলে ভিকটিমকে হুমকি দেয়া হয়। এর দুইদিন পর ঘটনাটি জানাজানি হয়ে গেলে স্থানীয় ওয়ার্ডের মেম্বার সোহেল খান উভয়পক্ষের সঙ্গে আপোসরফা করে দেয়ার জন্য মঙ্গলবার বৈঠকে বসেন। এ বৈঠকে ওই ভিকটিমের ইজ্জতের মূল্য নির্ধারণ করা হয় ৮০ হাজার টাকা।

গোপন সূত্রে খবর পেয়ে বগা পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের এক এসআই ওই রাতেই ঘটনাস্থলে গিয়ে এক ধর্ষককে গ্রেপ্তার করে বাউফল থানায় নিয়ে আসে।

বাউফল থানার ওসি খন্দকার মোস্তাফিজুর রহমান সাংবাদিকদের বলেন, ভিকটিমকে উদ্ধার করে পুলিশ হেফাজতে নেয়া হয়েছে। মামলার প্রস্তুতি চলছে।

মন্তব্য লিখুন :