হাজীগঞ্জে কিশোরের মৃত্যু নিয়ে ধুম্রজাল

চাঁদপুরের হাজীগঞ্জে কামরুল হাসান বাবু (১৬) নামের এক কিশোরের মৃত্যু নিয়ে ধুম্রজালের সৃষ্টি হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (৮ নভেম্বর) দুপুরে নিহতের মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য চাঁদপুর সদর হাসপাতালের মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে।

নিহত বাবু উপজেলার ৯নং গর্ন্ধব্যপুর উত্তর ইউনিয়নের আহম্মদপুর গ্রামের আশকর বেপারী বাড়ি কামাল হোসেন বড় ছেলে।

জানা যায়, বুধবার সন্ধ্যায় গন্ধর্ব্যপুর উত্তর ইউনিয়নের জগন্নাথপুর হরিপুর মাঠের আতিক শাহ ব্রিকফিল্ড থেকে বিদ্যুৎপৃষ্টে আহত হওয়ায় বাবুকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসে তার বন্ধু শাহপরান (২৮) ও ফয়সাল (২২)। পরে কর্তব্যরত ডাক্তার মুহাম্মদ আজাদুল হক পরীক্ষা-নিরীক্ষা শেষে বাবুকে মৃত ঘোষণা করে পুলিশে খবর দেন।

নিহতের পিতা কামাল হোসেন জানান, বুধবার মাগরিবের পর শাহপরান ও ফয়সাল আমার ছেলে বাবুকে বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে যায়। এরপরেই ফয়সালের বড় ভাই কাউছার আমার ছেলের দুর্ঘটনায় আহত হওয়ার খবর নিয়ে আসে। আমার ছেলেকে পূর্ব পরিকল্পিতভাবে খুন করা হয়েছে, নাকি সত্যিই বিদ্যুৎস্পৃষ্টে মারা গেছে, তার প্রকৃত কারণ জানতে চাই।

স্থানীয়রা বরছে, মটর চুরির উদ্দেশ্যে আতিক শাহ্ ব্রিক ফিল্ডে যায় শাহপরান, ফয়সাল ও বাবু। সেখানে বিদ্যুৎপৃষ্ট হয়ে মারা যায় বাবু। আবার কেউ কেউ বলছেন, বাবুকে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করা হয়েছে। তবে শাহপরান ও ফয়সাল মাদক সেবন ও চুরির সাথে জড়িত বলে এলাকাবাসী নিশ্চিত করেন।

ব্রিক ফিল্ডের পরিচালক নেছার আহমেদ ঘটনার সুষ্ঠ তদন্ত করে প্রকৃত রহস্য উদঘাটনের দাবী জানান।

হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসক মুহাম্মদ আজাদুল হক বলেন, কামরুল হাসান বাবুকে মৃত অবস্থায় পেয়েছি।

এ বিষয়ে থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. আলমগীর হোসেন জানান, এ ঘটনায় শাহপরান ও ফয়সালকে আটক করা হয়েছে ও একটি অপমৃত্যু মামলা করা হয়েছে। মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য চাঁদপুর সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে। রিপোর্ট আসার পর প্রকৃত তথ্য জানা যাবে।

মন্তব্য লিখুন :