সম্পত্তি লিখে না দেওয়ায় বাবাকে হত্যা

নরসিংদীতে সম্পত্তির ভাগ-বাটোয়ারা করে না দেওয়ায় ছেলের হাতে খুন হয়েছে এক হতভাগ্য বাবা।

শুক্রবার (৯ নভেম্বর) সকালে শহরের চৌয়ালা নামক স্থানে এ ঘটনা ঘটে।

নিহতের নাম ফজলুল করীম। সে চৌয়ালা এলাকার লাল মাহমুদের ছেলে। এ ঘটনায় নিহতের ঘাতক ছেলে মাসুম মিয়াকে (২৮) আটক করেছে পুলিশ।

পুলিশ ও নিহতের পরিবার সূত্রে জানা যায়, প্রায় ৬ বছর আগে নিহতের প্রথম পক্ষের স্ত্রী মারা গেলে তিনি আবার বিয়ে করেন। এর পর থেকেই নিহতের মেঝো ছেলে মাসুম মিয়া চাইতো বাবা যেন সম্পদের ভাগ বাটোয়ারা করে দেয়। কিন্তু ফজলুর করীম তা করতে চায়নি। এই নিয়ে মাসুম প্রায়ই তার সৎ মায়ের উপর নির্যাতন করতো। তার নির্যাতনের মাত্রা সইতে না পেরে ফজলুল করীম তার দ্বিতীয় পক্ষের স্ত্রীকে প্রায় ৭ মাস তার বাবার বাড়িতে রাখে।

পরবর্তীতে মাসুম কিছুটা শান্ত হলে তিনি তার স্ত্রীকে বাপের বাড়ি থেকে নিজের বাড়িতে নিয়ে আসে। কিছুদিন যেতে না যেতেই মাসুম আবার তার সৎ মায়ের উপর অত্যাচার শুরু করে। এই নিয়ে একবার বাবাকে পিটিয়ে আহত করে সে। পরে মামলা হলে পুলিশ তাকে গ্রেপ্তার করে জেলে পাঠায়। কারাগারে বেশ কিছুদিন থাকার পরে ফজলুল করীম তার স্ত্রীর (পরিবারের) অনুরোধে ছেলেকে জেল থেকে বের করে আনেন। জেল থেকে বের হয়ে কিছু দিন যেতে না যেতেই সে আবার তার আগের রূপ ধারণ করে। বাবাকে হত্যার হুমকি দেয়।

এ কারণে ভয়ে বাড়িতে থাকতেন না ফজলুল। আজ সকালে মাসুম পেছন থেকে সাবল দিয়ে তার ঘাড়ে আঘাত করে। এতে ঘটনাস্থলেই তার মৃত্যু হয়। সেখান থেকেই মাসুম পলাতক রয়েছে।

নরসিংদী সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সৈয়দুজ্জামান বলেন, আমরা নিহতের লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য নরসিংদী সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠিয়েছি। এ বিষয়ে থানায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।

মন্তব্য লিখুন :