নাটোর-৪: আ.লীগ নির্ভার, বিএনপিতে মনোনয়ন নিয়ে অনিশ্চয়তা

আগামী ৩০ ডিসেম্বর একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে নির্বাচনী এলাকায় গণসংযোগ করছেন নাটোর-৪ (গুরুদাসপুর-বড়াইগ্রাম) আসনের সংসদ সদস্য ও আওয়ামী লীগের দলীয় মনোনয়নপ্রাপ্ত নেতা অধ্যাপক আব্দুল কুদ্দুস। তিনি নিয়মিত উঠান বৈঠক, পথসভা, মিটিং মিছিল করে মাতিয়ে রেখেছেন গুরুদাসপুর-বড়াইগ্রামের নির্বাচনী এলাকা। আশা করছেন নির্বাচনে বিপুল ভোটে বিজয়ী হবেন।

তবে নির্বাচন চলে আসলেও নীরব রয়েছে বিএনপি। কেন না মনোনয়ন ধোয়াশায় রয়েছেন বিএনপি সমর্থকরা। এই আসনে বিএনপি থেকে তিনজনকে মনোনয়ন দেওয়া হয়। তারা হলেন- গুরুদাসপুর উপজেলা বিএনপির সভাপতি ও উপজেলা চেয়ারম্যান আব্দুল আজিজ, সাবেক এমপি মোজাম্মেল হক ও কেন্দ্রীয় ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক জন গমেজ। তাদের মধ্যে কে মনোনয়ন পাবে সেটা এখনো নিশ্চিত হতে পারেননি সমর্থকরা।

সোমবার সকালে গুরুদাসপুর পৌর শহরের চাঁচকৈড় বাজারের নতুন গরু হাট সংলগ্ন একটি অফিস উদ্বোধন করেন সাংসদ আব্দুল কুদ্দুস। এ সময় তার সমর্থকরা বিভিন্ন এলাকা থেকে মোটরসাইকেল শোভাযাত্রা নিয়ে অফিস উদ্বোধনে উপস্থিত হয় এবং পৌর শহরের বিভিন্ন সড়কে মিছিল করেন।

তবে কুদ্দুস মনোনয়ন পাওয়ার আগমুহূর্ত পর্যন্ত দলীয় কোন্দল ছিল। সেটা এখন অনেকটাই কমেছে। আওয়ামী লীগের এমপি বিরোধী অনেক নেতা-কর্মীও এখন অধ্যাপক আব্দুল কুদ্দুসের প্রচারণায় ও তার সাথে মিছিল মিটিং করছেন। তারা বলছেন সকল দ্বিধা-দ্বন্দ্ব ভুলে এখন সকলকেই নৌকার পক্ষে কাজ করতে হবে এবং অধ্যাপক আব্দুল কুদ্দুসের সাথে কাজ করতে হবে। তা না হলে নৌকার বিজয় আসবে না। আর নৌকার বিজয় না আসলে শেখ হাসিনার বিজয় হবে না। দেশের উন্নয়ন বাধাগ্রস্ত হবে। আর দেশের স্বার্থেই তা করতে হবে।

বিএনপি নেতা-কর্মী সূত্রে জানাগেছে, বিএনপি সমর্থকরা আব্দুল আজিজকে নিয়ে আশাবাদি। ইতিমধ্যেই দলীয় মনোনয়ন পেয়ে উপজেলা চেয়ারম্যানের পদ থেকে পদত্যাগও করেছেন আব্দুল আজিজ। কেন না বাকি দুইজনের চেয়ে অনেক বেশি জনপ্রিয় নেতা আব্দুল আজিজ। তবে েএখনো মনোনয়ন নিশ্চিত না হওয়ায় তিনি প্রচারণায় নামতে পারেননি। অন্য দুই প্রার্থীও রয়েছেন নীরব ভূমিকায়।
 

মন্তব্য লিখুন :