নোয়াখালীতে গণধর্ষণ: নির্যাতিতার পাশে বামজোটের নেতারা

নোয়াখালীর সুবর্ণচর উপজেলার চরজুবলী ইউনিয়নের বাগ্যা গ্রামে গৃহবধূকে (৪০) দেখতে গিয়েছেন বাম গণতান্ত্রিক জোটের নেতারা।

শুক্রবার (৪ ডিসেম্বর) দুপুরে বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টির সাধারণ সম্পাদক রুহিন হোসেন প্রিন্স ও কেন্দ্রীয় সম্পাদক মণ্ডলির সদস্য লক্ষ্মী চক্রবর্তীর নেতৃত্বে নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে যান বাম জোটের একটি প্রতিনিধি দল।

এসময় তারা ভুক্তভোগী নারীর সঙ্গে কথা বলেন এবং তার চিকিৎসা ও দোষীদের বিচারে সহযোগিতার আশ্বাস দেন।

প্রসঙ্গত, গত ৩০ ডিসেম্বর দিবাগত মধ্য রাতে নোয়াখালীর সূবর্ণচর উপজেলার চরজুবলী ইউনিয়নের চরবাগ্গা গ্রামে স্বামী-সন্তানকে বেঁধে চার সন্তানের জননীকে (৩২) গণধর্ষণের ঘটনা ঘটেছে। বিরোধী দলকে ভোট দেওয়ায় এ ঘটনা ঘটেছে বলে অভিযোগ করেছেন ভুক্তভোগীর স্বামী।

এ ঘটনায় দায়ের করা মামলার এজহারে বলা হয়েছে, ৩০ ডিসেম্বর ভোট গ্রহণ শেষে সরকারি দলের সমর্থক মোশারফ, সালাউদ্দিন ও সোহেলসহ ১০-১২ জন তাঁর বাড়িতে ব্যাপক ভাঙচুর চালায়। এ সময় আসামিরা তাঁকে ও তাঁর মেয়েসহ বাড়ির অন্যদের পিটিয়ে আহত করে অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে রাখে। পরে তারা তাঁর স্ত্রীকে ধর্ষণ করে এবং পিটিয়ে মারাত্মকভাবে আহত করে। পরের দিন সকালে এলাকাবাসী এসে তাঁদের উদ্ধার করে নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করে।

এ ঘটনায় দায়ের করা মামলায় নয় আসামীর মধ্যে ‘মূল ইন্ধনদাতা’ সুবর্ণচর উপজেলা আওয়ামী লীগের প্রচার সম্পাদক মো. রুহুল আমিনসহ সাতজনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

মন্তব্য লিখুন :