কলসিন্দুরের ফুটবল কন্যারা মালা রাণীকে এমপি হিসেবে দেখতে চায়

ময়মনসিংহের কলসিন্দুরের ফুটবল কন্যারা কলসিন্দুর স্কুল অ্যান্ড কলেজের সহকারী অধ্যাপক মালা রানী সরকারকে জাতীয় সংসদে সংরক্ষিত নারী আসনে সংসদ সদস্য হিসাবে দেখতে চায়।

এ বিষয়ে বাংলাদেশ জাতীয় নারী ফুটবল দলের অনুর্ধ-১৪ এবং ১৫ এর অধিনায়ক মারিয়া মান্ডা বলেন, কলসিন্দুরের ফুটবল কন্যাদের মা নামে খ্যাত মালা রানী সরকার। তিনি যদি জাতীয় সংসদে সংরক্ষিত নারী আসনে সংসদ সদস্য হলে আমাদের জন্য খুব ভালো হবে। কারণ, তিনি ছায়ার মতো আমাদের পাশে থাকেন।

জাতীয় নারী ফুটবল দলের সদস্য শামসুন্নাহার (জুনিয়র) বলেন, মালা ম্যাডাম আমাদের অভিভাবকের দায়িত্ব পালন করেন, আমরাও ওনাকে শ্রদ্ধা করি, ভালোবাসি। বিশেষ করে সব সময় তিনি আমার খোঁজ খবর রাখেন। তিনি এমপি হলে আমাদের জন্য অনেক ভালো হবে।

মেসিখ্যাত ফুটবলার তহুরা জানায়, মালা রাণী সবসময় আমাদের পাশে থাকেন, এতে আমরাও ফুটবল খেলার অনুপ্রেরণা পাই। আমরা মালা রানী সরকারকে জাতীয় সংসদে সংরক্ষিত নারী আসনে এমপি হিসাবে দেখতে চাই।

মালা রানী সরকার, ছাত্রজীবন থেকে ছাত্রলীগের রাজনীতি করেছেন। বর্তমানে ধোবাউড়া উপজেলা আওয়ামী লীগের মহিলা বিষয়ক সম্পাদক এবং এর আগে ১৯ বছর উপজেলা মহিলা আ.লীগের সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন।

তিনি এবার জাতীয় সংসদে সংরক্ষিত নারী আসনে সদস্য হতে চান। ইতোমধ্যে লবিং তদবির শুরু করেছেন। রাজনীতির পাশাপাশি সমাজসেবামূলক বিভিন্ন কার্যক্রমও করে থাকেন মালা সরকার।

তিনি ময়মনসিংহ জেলা ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটির সদস্য এবং বিভিন্ন সামাজিক সংগঠনের সাথে জড়িত আছেন। সামাজিক কার্যক্রমের পাশাপাশি তিনি খেলাধুলাও ভালোবাসতেন।

নিজে ফুটবল না খেললেও ফুটবলের প্রতি ছিল ভালোবাসা। কলসিন্দুর স্কুল অ্যান্ড কলেজের মেয়েরা গ্রীষ্মকালীন ক্রিড়া প্রতিযোগিতার মাধ্যমে ফুটবল খেলা শুরু করলে নিজেকে ফুটবলের সাথে জড়িয়ে রাখেন মালা রাণী সরকার।

মেয়েদের প্রত্যেকটি খেলা বাংলাদেশের বিভিন্ন স্থানে স্টেডিয়ামে বসে দেখেন তিনি। বর্তমানে কলসিন্দুর স্কুল অ্যান্ড কলেজের ১২ জন খেলোয়ার জাতীয় নারী ফুটবল দলের সদস্য। ফুটবলার মেয়েদের সাথে মালা রাণীর রয়েছে নিবিড় সম্পর্ক রয়েছে।

তিনি উপজেলা প্রশাসনের মাধ্যমে মেয়েদের বিভিন্ন সুযোগ সুবিধা দেওয়ার পাশাপাশি, আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দের মাধ্যমে ফুটবল খেলাকে এগিয়ে নেওয়া ও মেয়েদের জন্য অনুদান নিয়ে আসেন এমনকি কেউ অসুস্থ হলে চিকিৎসার ব্যবস্থা করেন তিনি। এসব কারণে মেয়েরাও তাদের শিক্ষক মালা রাণী সরকারকে অনেক ভালোবাসেন।

বর্তমানে মালা রাণী সরকার কলসিন্দুর স্কুল অ্যান্ড কলেজের সহকারী অধ্যাপক এবং নারী ফুটবল টিমের টিম ম্যানেজার হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন।

ধোবাউড়া উপজেলা আ.লীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা ইয়াকুব আলী জানান, ধোবাউড়া বাসীর প্রাণের দাবি কলসিন্দুর স্কুল অ্যান্ড কলেজের সহকারী অধ্যাপক মালা রানী সরকারকে জাতীয় সংসদে দেখার।

কলসিন্দুর স্কুল অ্যান্ড কলেজের সহকারী অধ্যাপক মালা রানী সরকার বলেন, ফুটবল না খেললেও খেলার প্রতি ছিল বাড়তি আগ্রহ, তাই ফুটবলার মেয়েদের পাশে আছি, সবসময় তাদের পাশে থাকতে চাই। আমি যেন, ধোবাউড়া বাসীর সেবা করতে পারি।

মন্তব্য লিখুন :