ডাক্তার দেখাতে গিয়ে গণধর্ষণের শিকার তরুণী

গোপালগঞ্জ সদরে ডাক্তার দেখাতে গিয়ে এক তরুণী গণধর্ষণের শিকার হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য এ ঘটনায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য দুই ভিযুক্তকে আটক করেছে পুলিশ।

গত মঙ্গলবার রাতে এ ঘটনা ঘটে। পরে আজ বৃহস্পতিবার দুইজনকে আটক করে পুলিশ।

নির্যাতনের শিকার ওই তরুণীকে উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করেছে পুলিশ ও স্বজনরা।

ভিকটিম জানায়, গত মঙ্গলবার সে জেলা সদর ডাক্তার দেখাতে আসে। ডাক্তার দেখিয়ে সন্ধ্যার দিকে গ্রামের বাড়ি সদর উপজেলার বড়ফা গ্রামে যাওয়ার জন্য একটি মাহেন্দ্র গাড়িতে (থ্রী হুইলার) উঠে। কথা ছিল তাকে চন্দ্রদিঘলিয়া স্টান্ডে নামিয়ে দেবে। কিন্তু, ওই গাড়িতে থাকা দুই যুবক ও গাড়ি চালক তাকে চন্দ্রদিঘলিয়ায় না নামিয়ে মেরী গোপিনাথপুর এলাকায় নিয়ে যায়। সেখানে নিয়ে তাকে একটি ধানক্ষেতের মটর ঘরে নিয়ে পালাক্রমে ধর্ষণ করে পালিয়ে যায়।

তিনি জানান, পরে স্থানীয়রা দেখে পুলিশে খবর দিলে পুলিশ গিয়ে তাকে উদ্ধার করে গোপালগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করে।

গোপালগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালের সহকারী পরিচালক ডা. অসিত কুমার মল্লিক জানান, ধর্ষণের অভিযোগ এনে এক তরুণী হাসপাতালে ভর্তি হয়েছে। তাকে আমরা চিকিৎসা সেবা দিচ্ছি। ডাক্তারি পরীক্ষার পর জানা যাবে আসল ঘটনা।

গোপালগঞ্জ সদর উপজেলার গোপিনাথপুর পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের পরিদর্শক হযরত আলি ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত থানায় কোনো মামলা হয়নি। তবে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য দুইজনকে আটক করা হয়েছে।

মন্তব্য লিখুন :