প্রেমিকের বয়স ২৭, প্রেমিকার ৫২, বিয়ের পেছনে ভয়াবহ কারণ

একটা প্রবাদ আছে ‘প্রেম কোনো বাধা মানে না, জাতপাত ভেদাভেদ মানে না’। প্রবাদটা যে সত্য তার প্রমাণ দিয়েছেন চুয়াডাঙ্গার দামুড়হুদা উপজেলার ফয়সাল আহমেদ ও আমেরিকার নাগরিক ডংসন লং। কারণ এই জুটিটা যে অসম জুটি। প্রেমিক ফয়সালের বয়স যেখানে ২৭, সেখানে প্রেমিকা ডংসনের ৫২। তবে অনুসন্ধানে জানা গেল এই বিয়ের পেছনের ভয়াবহ কারণ।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকের মাধ্যমে তাদের পরিচয় হয়। পরিচয় থেকে বন্ধুত্ব, প্রেম। তারপর বাংলাদেশ আর যুক্তরাষ্ট্রের দূরত্ব ঘুচিয়ে প্রেমিক ফয়সাল আহমেদের কাছে ছুটে আসেন ডংসন লং। সেই সঙ্গে বিয়ে করেন এই যুগল। পাশাপাশি মুসলমান হন ডংসন লং। তার বর্তমান নাম মরিয়ম খাতুন।

এদিকে, প্রেমিক ফয়সালের বিরুদ্ধে উঠেছে গুরুতর অভিযোগ। স্থানীয় সূত্র জানিয়েছে, ফয়সালের স্ত্রী ও সন্তান রয়েছে। তাই কাউকে কিছু না জানিয়ে মার্কিন নারীকে বিয়ে করে পালিয়ে যান ফয়সাল।

স্থানীয় সূত্র জানায়, ফয়সালের সাথে ইদানিং তার স্ত্রীর সম্পর্ক ভালো যাচ্ছে না। ফয়সাল গত কয়েকমাস ধরেই তার স্ত্রীকে যৌতুকের জন্য চাপ দিয়ে আসছে। কিন্তু টাকা দিতে নারাজ তার স্ত্রী। তাই ফয়সাল আমেরিকা যাওয়ার জন্য ওই মধ্যবয়সী নারীকে বিয়ে করেছেন।

এ ঘটনার পর কয়েক দিন ধরে ফয়সালকে এলাকায় দেখা যায়নি। সে ঘটনার পর থেকে পলাতক রয়েছে। তার স্ত্রীকেও কয়েকবার বাড়িতে গিয়ে পাওয়া যায়নি।

এ বিষয়ে কথা বলতে চাইলে কোনো কিছু বলতে রাজি হননি ফয়সালের বাবা শাহাবুল হোসেন। ফয়সালের মোবাইল নম্বরও বন্ধ রয়েছে।

মন্তব্য লিখুন :