এবার ধান চাষ না করার শপথ নিলেন কৃষকরা

ধানের দাম নিশ্চিতে ব্যবস্থা না নিলে রংপুরের কৃষকরা আগামী বছর থেকে আর ধান চাষ করবে না বলে শপথ নিয়েছে।

ধানের ন্যায্যমূল্য নিশ্চিত ও ধানের মূল্য বিপর্যয়ের প্রতিবাদে বৃহষ্পতিবার (১৬ মে) দুপুরে নগরীর সাতমাথায় বীরশ্রেষ্ঠ স্কয়ারের সামনে রাস্তায় ধান ফেলে বিক্ষোভ শেষে এ শপথ করেন চাষিরা।

কৃষক সংগ্রাম পরিষদের ব্যানারে ডাকা এই কর্মসূচিতে কৃষকরা সরকারি ব্যবস্থাপনায় হাটে হাটে ক্রয়কেন্দ্র খোলার দাবি জানান।

তারা বলেন, হাটে হাটে ক্রয়কেন্দ্র খুলে সরাসরি কৃষকের কাছ থেকে ধান কেনার ব্যবস্থা সরকারকেই করতে হবে। সরকার ১১৪০ টাকা মণ দর ঘোষণা করার পরও খোলাবাজারে কেন মূল্য-বিপর্যয় ঘটেছে তা সরকারকে খুঁজে বের করতে হবে। তা না হলে কৃষকরা বাঁচবে না।

কৃষকরা জানান, একজন শ্রমিকের মজুরির চেয়ে এক মণ ধানের দাম এখন কম। উৎপাদন ব্যয়ের অর্ধেক তুলতে না পেরে কৃষকের অস্তিত্ব বিলীন হতে চলেছে।

কৃষক সংগ্রাম পরিষদের আহবায়ক আব্দুস সাত্তার বকুলের সভাপতিত্বে সমাবেশে বক্তব্য রাখেন, কৃষক সংগ্রাম পরিষদের উপদেষ্টা পলাশ কান্তি নাগ, সদস্য সাত্তার প্রামাণিক, আতোয়ার মিয়া বাবু, জাকির হোসেন, আবু তালেব, শফিকুল ইসলাম, সবুজ হাসান সাগর, নিপীড়ণ বিরোধী নারী মঞ্চের আহবায়ক নন্দিনী দাস, সদস্য সচিব সানজিদা আক্তার, শ্রমিক অধিকার আন্দোলনের সদস্য সদস্য সচিব সুভাষ রায়, সবুজ হাসান সাগর প্রমুখ।

এ সময় বিক্ষোভকারীরা সমস্যার আশু-সমাধান করা না হলে পরবর্তী বছর থেকে ধানের আবাদ না করার শপথ নেন চাষিরা। এদিকে একই সময়ে রংপুর প্রেসক্লাব চত্বরে বাসদ (মাকর্সবাদী) রংপুর জেলা শাখার নেতৃবৃন্দ কৃষকদের বাঁচানোর দাবি জানিয়ে মানববন্ধন সমাবেশ করেন। এ সময় খোলাবাজারে ধানের মূল্য বিপর্যয়ের প্রতিবাদ জানিয়ে সেখানে ধানে আগুন দেয় ক্ষুদ্ধ কৃষকরা।

মন্তব্য লিখুন :