বিএনপি নেতা হত্যাকাণ্ডে অংশ নিয়ে ২৫০০ টাকা পায় বিপুল

বগুড়ায় বিএনপি নেতা ও পরিবহন ব্যবসায়ী অ্যাডভোকেট মাহবুব আলম শাহীন হত্যায় অংশ নিয়ে মাত্র আড়াই হাজার টাকা পায় বেলাল হোসেন বিপুল (৩০)। সেই টাকায় ওই রাতেই তিন বন্ধু ফেনসিডিল সেবন করে যে যার মতো আত্মগোপনে চলে যায়।

পুলিশের ভাষ্য, গ্রেপ্তারের পর বিপুল পুলিশের কাছে এ তথ্য জানিয়েছে। বুধবার (১৫ মে) রাতে আদমদীঘি থানার কুশম্বী গ্রামে শ্বশুর বাড়ি থেকে সে গ্রেপ্তার হয়।

বিপুল বগুড়া শহরের নিশিন্দারা মন্ডলপাড়ার মামুনুর রশিদ নান্নুর ছেলে। বৃহস্পতিবার (১৬ মে) দুপুরে তাকে আদালতে হাজির করা হলে শাহীন সে জড়িত থাকার কথা স্বীকার করে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তি দিয়েছে।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা পুলিশ পরিদর্শক আমবার হোসেন বলেন, বিপুলের নাম এজাহারে ছিল না। এর আগে গ্রেপ্তার দুইজনের জবানবন্দীতে বিপুলের নাম পাওয়া যায়।

বিপুলের বরাত দিয়ে পুলিশ জানায়, শাহীন হত্যার সময় বিপুলের হাতে ধারালো অস্ত্র ছিল। শাহীনের ওপর হামলা করা হলে তিনি রাস্তায় পড়ে যান। এ সময় বিপুল তার বাম পায়ে কোপ দেয়। সেখান থেকে পালিয়ে চারমাথা এলাকায় গেলে তাকে আড়াই হাজার টাকা দেয়া হয়। ওই টাকায় তিন বোতল ফেনসিডিল কিনে তিন বন্ধু সেবন করেন। এর মধ্যে জানতে পারে শাহীন মারা গেছেন। শাহীন মারা যাওয়ার খবর শুনে যে যার মতন আত্মগোপন করে।

মন্তব্য লিখুন :