দুই ইউএনওর মোবাইল নম্বর ক্লোন করে চাঁদা দাবি

ফেনীর পরশুরাম ও দাগনভূঞা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার (ইউএনও) ব্যবহৃত সরকারি মোবাইল নম্বর হ্যাক (ক্লোন) করা হয়েছে। ওই নম্বর দুটি থেকে একটি চক্র বিভিন্ন ব্যক্তির কাছে কল করে চাঁদা দাবি ও বিভ্রান্তি ছড়ানোর চেষ্টা করছে।

এরই মধ্যে হ্যাক হওয়া পরশুরাম উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার ফোন নম্বর থেকে অজ্ঞাত ব্যক্তি বিভিন্ন জনের কাছে চাঁদা দাবি করছেন বলে জানা গেছে।

এ ধরনের ফোনকলের পরিপ্রেক্ষিতে কোনো টাকা-পয়সা দেয়া কিংবা কোনো চুক্তি না করতে দাগনভূঞা ও পরশুরাম উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে পৃথকভাবে অনুরোধ জানানো হয়েছে। কেউ এ চক্রের সন্ধান পেলে বা এই ধরনের নম্বর থেকে ফোন পেলে উপজেলা প্রশাসন, ফেনী এবং আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে জানাতে বলা হয়েছে।

দাগনভূঞা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সাইফুল ইসলাম ভূঞা বলেন, ‘ক্লোন নম্বর থেকে কল করা হলে মোবাইল ফোন বা সিমে সংরক্ষিত ব্যক্তির নাম ভেসে উঠলেও ওই নম্বরের শুরুতে সাধারণত ‘০’ বা শূন্য থাকে না।

যেমন ইউএনও, দাগনভূঞার মোবাইল ফোন নম্বর ০১৭১৩ ১৮৭৩১৮ হলেও ক্লোন করা নম্বর হবে ১৭১৩১৮৭৩১৮। এ ছাড়া যে কোনো অনভিপ্রেত ঘটনার জন্য দুঃখ প্রকাশ করছি এবং সবাইকে সতর্ক থাকার জন্য অনুরোধ করছি।’

উপজেলা প্রশাসনের ইউএনও দাগনভূঞা, ফেনী নামে ফেসবুক আইডি থেকে সবাইকে সতর্ক থাকার অনুরোধ জানানো হয়েছে।

অন্যদিকে পরশুরাম উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মোহাম্মদ রাসেল কাদের জানান, তার সরকারি ফোন নম্বর ০১৭১৩ ১৮৭৩১৬ ক্লোন করা হয়েছে। পরশুরাম উপজেলা প্রশাসন অতীতে কিংবা বর্তমানে কারও সঙ্গে এ ধরনের কোনো লেনদেনে জড়িত ছিল না এবং নেই।

সর্বসাধারণকে এ ধরনের প্রতারকদের ফাঁদে পা না দেয়ার জন্য উপজেলা প্রশাসন থেকে অনুরোধ করা হয়েছে।

এ বিষয়ে পরশুরাম মডেল থানায় একটি সাধারণ জিডি করা হয়েছে।

মন্তব্য লিখুন :