নোয়াখালীতে গৃহবধূকে গণধর্ষণের পর লুটপাট

নোয়াখালীর বেগমগঞ্জ উপজেলার ছয়ানি ইউনিয়নে এক গহবধূকে গণধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে। ঘটনায় অভিযুক্তদের মধ্যে সাইফুল ও বাবু নামে দুই আসামিকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। এ সময় তাদের কাছ থেকে একটি এলজি ও এক রাউন্ড গুলি উদ্ধার করা হয়েছে।

শুক্রবার (২৪ মে) সকালে পুলিশ দোয়ালিয়া গ্রামের একটি বাড়ী ঘেরাও করে আসামিদের গ্রেপ্তার করে।

গ্রেপ্তারকৃত সাইফুল ওই গ্রামের মোস্তফার ছেলে ও বাবু রুদ্রপুর গ্রামের কফিল উদ্দিনের ছেলে। এরআগে বৃহস্পতিবার রাতে গৃহবধূর ঘরে ঢুকে তিনজন মিলে পালাক্রমে ধর্ষণ করে।

নির্যাতিতার পরিবার জানায়, অভিযুক্ত তিন আসামি হারুন, সাইফুল ও বাবুর সাথে পুকুরে মাছ চাষকে কেন্দ্র করে ভিকটিমের স্বামীর সাথে বিরোধ চলে আসছিল। এর জের ধরে বিভিন্ন সময় আসামিরা তাদের হুমকি দিয়ে আসছে। এর সূত্র ধরে বৃহস্পতিবার রাতে ভিকটিমদের ঘরে ঢুকে ভিকটিমকে মারধর করে আহত করে আসামিরা। পরে ওই তিনজন ভিকটিমকে একটি কক্ষে নিয়ে পালাক্রমে ধর্ষণ করে। বাড়ির আশপাশের লোকজন বিষয়টি টের পেয়ে এগিয়ে আসলে আসামিরা পালিয়ে যায়।

তারা অভিযোগ করেন, গণধর্ষণ শেষে আসামিরা তাদের ঘর থেকে ৪০ হাজার টাকার একটি স্বর্ণের চেইন ও তাদের বসত রে ব্যাপক ভাঙচুর করে।

বেগমগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ফিরোজ আলম মোল্লা বলেন, ঘটনায় ভিকটিমের স্বামী বাদী হয়ে তিনজনের নাম উল্লেখ করে একটি মামলা দায়ের করেছেন। মামলার সূত্র ধরে অভিযান চালিয়ে অস্ত্রসহ দুইজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। অপর আসামিকে গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।

ওসি আরো বলেন, ভিকটিমকে উদ্ধার করে ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

মন্তব্য লিখুন :