পাবনায় ২ স্কুলছাত্রী ধর্ষণের শিকার, অন্তঃসত্ত্বা একজন

পাবনার ভাঙ্গুড়া ও ঈশ্বরদীতে দুই স্কুলছাত্রী ধর্ষণের শিকার হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। এদের মধ্যে একজন অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়েছে। এ ঘটনায় জড়িত অভিযোগে মজনু সরকার (৪০) নামের এক অভিযুক্তকে আটক করেছে পুলিশ।

ভাঙ্গুড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাসুদ রানা জানান, ভাঙ্গুড়া উপজেলার রাঙ্গালিয়া গ্রামের মজনু সরকার গত পাঁচ মাস আগে তার বাড়ির পাশের এক কিশোরী স্কুলছাত্রীকে (১৩) বাড়িতে একা পেয়ে একাধিকবার ধর্ষণ করে এবং এ ঘটনা কারও কাছে প্রকাশ করলে তাকে মেরে ফেলার হুমকি দেয়। এতে অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়লে স্কুলছাত্রী বিষয়টি তার বাবা-মা ও মজনুকে জানায়। তখন অভিযুক্ত মজনু গর্ভপাত করাতে ওই ছাত্রীকে গোপনে কিছু ওষুধ সেবন করায়। ওষুধ খেয়ে সে গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়লে গতকাল রাতে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়।

পরে এ ঘটনায় মজনু সরকারকে অভিযুক্ত করে শুক্রবার রাতে থানায় মামলা করেন স্কুলছাত্রীর বাবা। পরে রাতেই তাকে আটক করে পুলিশ, জানান ওসি।

ঈশ্বরদী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) বাহাউদ্দিন ফারুকী জানান, উপজেলার অরনকোলা পশ্চিমপাড়া গ্রামে গত ২২ মে দুপুরে এক কিশোরীকে (১৫) ধর্ষণের ঘটনা ঘটেছে। একই গ্রামের মৃত বেলাল হোসেনের ছেলে আতিকুল ইসলাম (২০) নামের এক যুবকের বিরুদ্ধে এই ধর্ষণের অভিযোগে শুক্রবার রাতে মামলা হয়েছে।

শনিবার (২৫ মে) দুপুরে উভয় ভিকটিমের ডাক্তারি পরীক্ষা পাবনা জেনারেল হাসপাতালে সম্পন্ন হয়েছে। গাইনী চিকিৎসক ডা. নার্গিস সুলতানা তাদের পরীক্ষা করেন। প্রাথমিক পরীক্ষায় ধর্ষণের আলামত মিলেছে বলে জানা গেছে।

মন্তব্য লিখুন :