রাতে সীমান্ত খুলে দেয় বিএসএফ, ভারতীয় হাতি এসে চালায় তাণ্ডব

কুড়িগ্রামের রৌমারী উপজেলার ভারতীয় সীমান্তে বন্যহাতির তাণ্ডবে কৃষকের বোরো ধানের জমি নষ্ট হয়ে গিয়েছে। গত কয়েক দিনে সীমান্ত সংলগ্ন বাংলাদেশী কৃষকের বোর ধানের প্রায় ৪০ একর জমি হাতি পা দিয়ে মাড়িয়ে নষ্ট করেছে। আর কয়েক দিন পরেই এসব জমিতে ধান সংগ্রহ করা যেত।      
 
স্থানীয়রা বলেন, হাতির আক্রমণে দিশাহারা রৌমারী সীমান্তের কৃষকরা। গত ১ সপ্তাহ থেকে সন্ধা রাতে রৌমারী উপজেলার যাদুরচর ইউনিয়নের আলগারচর, উত্তর আলগারচর, খেওয়ারচর, লাঠিয়াল ডাঙ্গা গ্রামে হাতি প্রবেশ করে কৃষকের উঠতি বোরো ধান খেয়ে ও পা দিয়ে মাড়িয়ে নষ্ট করছে। কয়েক ঘন্টা অবস্থান করে আবারও ভারতীয় অভ্যন্তরে চলে যায় হাতির দলটি। কখনও দুটি আবার কখনও ৩ থেকে ৪টি করে হাতি দলবেঁধে আসে।  

আলগার চর গ্রামের কৃষক রবিউল ইসলাম জানান, সীমান্তে দুই বিঘা জমিতে ধান লাগিয়েছিলেন তিনি। হাতির দল এসে জমির ধান পায়ে মাড়িয়ে নষ্ট করে গেছে।

আজিজুর রহমান নামের আরেক কৃষক বলেন, সীমান্তে কাঁটা তারের বেড়া আছে, মাঝে মাঝে গেট করাও আছে। রাত হইলে বিএসএফ গেট খুইলা দেয় তহন হাতি নাইমা আইসা ধানের জমি নষ্ট করে।

ছফর আলী নামের আরেক কৃষক বলেন, প্রায় প্রত্যেক বছর হাতি ধান নষ্ট করে। হাতির আক্রমণে সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয় আলগারচর গ্রামের কৃষকরা।   

এ বিষয়ে জানতে চাইলে রৌমারী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা দীপঙ্কর রায় বলেন, বন বিভাগ ও কৃষি বিভাগকে সাথে নিয়ে একটি উদ্যোগ নেওয়া হবে যাতে কৃষকরা ক্ষতিগ্রস্ত না হয়।     

মন্তব্য লিখুন :