ছেলের হাতে মা খুনের অভিযোগ

ঢাকার ধামরাই উপজেলায় ছেলের হাতে বৃদ্ধ মা নিহত হওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে। রোববার সন্ধ্যায় উপজেলার বাউখন্ড পশ্চিমপাড়া গ্রামে এই ঘটনা ঘটে। জমি নিয়ে বিরোধের জেরে তাঁকে খুন করা হতে পারে বলে পুলিশের ধারণা। এই ঘটনার পরপরই অভিযুক্ত ওই ছেলেকে আটক করেছে পুলিশ।

নিহত ওই বৃদ্ধ মায়ের নাম ওজুফা খাতুন (৬৫)। তিনি বাউখন্ড পশ্চিমপাড়া গ্রামের বাসিন্দা মৃত চাঁন মিয়ার স্ত্রী। অভিযুক্ত তাঁর ছেলের নাম রমজান আলী।

ধামরাই থানা-পুলিশ জানায়, বছর ছয়েক আগে চাঁন মিয়া মারা যান। এরপর থেকে রমজান আলী তাঁর মাকে জমি লিখে দেওয়ার জন্য নানাভাবে চাপ দিয়ে আসছিলেন। জমি লিখে দিতে রাজি না হওয়ায় রমজান তাঁর মাকে এর আগে কয়েক দফা মারধরও করেছেন। ছেলের ভয়ে ওজুফা একই গ্রামে তাঁর বাবার বাড়িতে থাকতেন। দিনে মাঝেমধ্যে নিজের বাড়ি গেলেও রাত কাটাতেন বাবার বাড়িতে। রোববার দুপুরে গোসল করে নিজের বাড়িতে কাপড় শুকাতে দিয়েছিলেন ওজুফা।

সন্ধ্যার আগে ওজুফা কাপড় আনতে গেলে রমজান কংক্রিটের টুকরা দিয়ে তাঁর মাথায় আঘাত করেন। এতে ঘটনাস্থলেই তাঁর মৃত্যু হয়। এরপর প্রতিবেশীরা ধাওয়া করে রমজানকে আটক করে বেঁধে রাখেন। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পুলিশ গিয়ে রমজানকে আটক করে থানায় নিয়ে যায়।

স্থানীয়রা জানান, রমজান আলীর স্বভাব উচ্ছৃঙ্খল প্রকৃতির। রমজানের ভয়ে তাঁর বড় দুই ভাই কয়েক বছর আগে বাড়ি ছেড়ে চলে গেছেন। জমি লিখে না দেওয়ায় রমজান তাঁর মাকে প্রায়ই হত্যার হুমকি দিতেন। ছেলের হাত থেকে বাঁচার জন্য তিনি এলাকার অনেকের কাছে সহায়তা চেয়েছেন। এমন পরিস্থিতিতে রমজানকে কয়েক বছর আগে পুলিশে দেওয়া হয়েছিল। মাস ছয়েক পর জামিনে বের হয়ে এসে আগের মতোই মাকে হুমকি দিতেন। ভয়ে মা ওজুফা তাঁর বাবার বাড়িতে থাকতেন।

ধামরাই থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) দীপক চন্দ্র সাহা বলেন, মাকে হত্যার সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগে ছেলে রমজানকে আটক করা হয়েছে। তাঁর বিরুদ্ধে মামলার প্রস্তুতি চলছে।