বিয়ের প্রলোভনে কিশোরীকে ধর্ষণ করল ২ সন্তানের জনক

ময়মনসিংহের তারাকান্দায় বিয়ের প্রলোভনে ১৩ বছরের এক কিশোরীকে ধর্ষণ করেছে হাফিজুল ইসলম নামে দুই সন্তানের এক জনক।

হাফিজুল ইসলাম উপজেলার ঢাকুয়া ইউনিয়নের নিতারাশী গ্রামের হাছান আলীর ছেলে। সে দুই সন্তানের জনক।

এ ঘটনায় রবিবার (৯ জুন) শিশুর মা বাদি হয়ে হাফিজুল ইসলামের নামে তারাকান্দা থানায় একটি ধর্ষণ মামলা দায়ের করেছেন।

এর আগে গত ২১ মে মেয়েটির সাথে মোবাইল ফোনে কথা বলে তারাকান্দার বাসস্ট্যান্ডে নিয়ে শিশুটিকে ভয়-ভীতি ও বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে ঢাকার গাজীপুরে অজ্ঞাত স্থানে নিয়ে তাকে ধর্ষণ করে।

পরিবারের সদস্যদের বরাত দিয়ে পুলিশ জানায়, ধর্ষক হাফিজুল ইসলাম ধর্ষিতার আত্মীয়তার সম্পর্ক হওয়া পূর্ব পরিচিতি ছিলেন। হাফিজুল ইসলাম মেয়েটিকে ভয়-ভীতি ও বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে ঢাকার গাজীপুরে অজ্ঞাত স্থানে নিয়ে তাকে ধর্ষণ করে। 

পরে গত ৮ জুন শনিবার ধর্ষণকারী হাফিজুল ইসলাম শিশুটিকে নিয়ে তার মামার বাড়ি তারাকান্দা মধুপুর গ্রামে আসে। হাফিজুল শিশুটিকে সদ্য বিবাহিত স্ত্রী হিসাবে পরিচয় দিলে বাড়ির লোকজনের সন্দেহ হয়।

এদিকে পরিবারের লোকজন খবর পেয়ে ভুক্তভোগী পরিবার তারাকান্দা থানার পুলিশকে খবর দিলে পুলিশ মেয়েটিকে মধুপুর গ্রাম থেকে উদ্ধার করে। 

তারাকান্দা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মিজানুর রহমান আকন্দ ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, হাফিজুল ইসলামকে গ্রেপ্তারের জন্য অভিযান চলছে।

মন্তব্য লিখুন :