জামালপুরে সাংবাদিকের উপর হামলার মামলায় কাউন্সিলরসহ ৮জন কারাগারে

জামালপুরে তথ্য সংগ্রহকালে দৈনিক কালের কণ্ঠের সাংবাদিক মোস্তফা মনজুর এর উপর হামলা ও নির্যাতন মামলার প্রধান আসামি পৌর কাউন্সিলর হাসানুজ্জামান খান রুনুসহ ৮ আসামির জামিন নামঞ্জুর করে জেলহাজতে পাঠিয়েছেন আদালত।

বুধবার (১২ জুন) দুপুরে এই মামলার ৮ আসামি চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে আত্মসর্মপণ করে জামিনের আবেদন করে। বিচারক মো. সোলায়মান কবির জামিন নামঞ্জুর করে তাদেরকে জেল হাজতে পাঠানোর নির্দেশ দেন।

মামলার ৯ আসামির মধ্যে পৌর কাউন্সিলর হাসানুজ্জামান খান রুনুর ছেলে রাকিব (২৪) পলাতক রয়েছে।

বাদীপক্ষের আইনজীবী ফজলুল হক জানান, গত ২৮ জুন দুপুরে জামালপুর সদর সাব রেজিস্ট্রি অফিসে জাল পরচা ও খারিজসহ জমি রেজিস্ট্রি সংক্রান্ত জাল কাগজপত্র জব্দ হওয়ার বিষয়ে তথ্য সংগ্রহ করতে গেলে ভেন্ডার ও পৌর কাউন্সিলর হাসানুজ্জামান খান রুনুসহ ভূমি দস্যুরা কালের কণ্ঠের সাংবাদিক মোস্তফা মনজুর উপর হামলা করে। এসময় তাকে অমানুষিক নির্যাতন করা হয়।

ওইদিন রাতেই মোস্তফা মনজুর পৌর কাউন্সিলর হাসানুজ্জামান রুনুসহ ৯ জনকে আসামি করে জামালপুর সদর থানায় মামলা করেন। মামলা দায়েরের দুইদিন পর ৩০ জুন আদালতে আত্মসমর্পণ করে জামিন চাইলে বিচারক সোলায়মান কবির জামিন মঞ্জুর করেন। আসামিরা জামিনে বেরিয়ে আদালত প্রাঙ্গণে উপস্থিত সাংবাদিকদের হাত-পা ভেঙে ফেলাসহ প্রাণনাশের হুমকি দেয়। এরপর গত ১ জুন ৪৮জন সাংবাদিক জীবনের নিরাপত্তা চেয়ে জামালপুর সদর থানায় সাধারণ ডায়েরি করেন।

সাংবাদিক মোস্তফা মনজুরকে আসামিরা হত্যার হুমকি দেয়ায় তিনি ও তার পরিবার নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছে দাবি করে গত ৯জুন আদালতে আসামিদের জামিন বাতিলের আবেদন করেন। আদালত আসামিদের জামিন বাতিল করে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারির আদেশ দেন।

জামালপুর চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের পরিদর্শক আব্দুল কাদের মিয়া সাংবাদিকের ওপর হামলা ও নির্যাতন মামলার প্রধান আসামি পৌর কাউন্সিলর হাসানুজ্জামান খান রুনুসহ ৮ আসামির জামিন নামঞ্জুর করে জেল হাজতে পাঠানোর খবর নিশ্চিত করেছেন।

প্রসঙ্গত, সাংবাদিক মোস্তফা মনজুর এর উপর হামলা ও নির্যাতনের প্রতিবাদ এবং পেশাগত দায়িত্ব পালনকালে নিরাপত্তার দাবিতে জামালপুরের সাংবাদিকরা আন্দোলন করে আসছেন।

মন্তব্য লিখুন :