বেড়ায় নির্যাতনে গৃহবধূকে হত্যার অভিযোগ

পাবনার বেড়ায় আল্লাদি খাতুন (২০) নামের এক গৃহবধুকে নির্যাতন করে হত্যার অভিযোগ উঠেছে শ্বশুরবাড়ির লোকজনের বিরুদ্ধে। 

শুক্রবার (১৬ আগষ্ট) সকাল দশটার দিকে বেড়া পৌর এলাকার শম্ভুপুরা গ্রাম থেকে ওই গৃহবধুর মরদেহ  উদ্ধার করেছে পুলিশ। ঘটনার পর থেকে পলাতক রয়েছে নিহতের শশুরবাড়ির লোকজন। 

স্থানীয় বাসিন্দা সুত্রে জানা গেছে, বেড়া উপজেলার হাটুরিয়া-নাকালিয়া ইউনিয়নের চর নাকালিয়া গ্রামের জয়নাল মোল্লার মেয়ে আল্লাদি খাতুনের সাথে একই উপজেলার পৌর এলাকার শম্ভুপুরা গ্রামের মোজাম্মেল হকের ছেলে ছিদ্দিকুর রহমানের বিয়ে হয় দুই বছর আগে। বিয়ের পর থেকেই যৌতুকের জন্য ছিদ্দিক ও তার পরিবারের সদস্যরা আল্লাদিকে শারীরিক ও মানসিক নির্যাতন করে আসছিল বলে দাবি আল্লাদির স্বজনদের।

এলাকাবাসী ও স্বজনদের ধারণা, বৃহস্পতিবার দিবাগত রাত অথবা শুক্রবার ভোরে কোন এক সময় শ্বশুড়রবাড়ির লোকজনের নির্যাতনে আল্লাদির মৃত্যু হয়। মরদেহ রিক্সাভ্যানে তুলে কোথাও নেয়ার চেষ্টা করেছিল তারা। 

এ সময় আশপাশের লোকজনের উপস্থিতি টের পেয়ে ছিদ্দিক ও তার বাড়ীর লোকজন ঘরে তালা দিয়ে পালিয়ে যায়। রিক্সাভ্যানের উপর আল্লাদির মরদেহ দেখে স্থানীয়রা পুলিশে খবর দেয়। পরে বেড়া মডেল থানা পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে মরদেহ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য পাবনা জেনারেল হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে।

এ বিষয়ে বেড়া মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শাহিদ মাহমুদ বলেন নিহতের গলায় আঘাতের চিহ্ন পাওয়া গেছে। স্বামীর নির্যাতনে গৃহবধূর মৃত্যু হতে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে। এ ঘটনায় নিহতেহর পরিবারের পক্ষ থেকে থানায় মামলার প্রস্তুতি চলছে বলে জানান তিনি।

মন্তব্য লিখুন :