হোমিও দোকানের স্পিরিট খেয়ে ৫ জনের মৃত্যু

নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জে হোমিও দোকানের স্পিরিট (নেশা করার জন্য) এর সাথে কোমল পানীয় পান করে পাঁচজনের মৃত্যু হয়েছে।

শুক্রবার (২৭ সেপ্টেম্বর) সকাল থেকে মধ্য রাত পর্যন্ত এ অস্বাভাবিক মৃত্যুর ঘটনাগুলো ঘটে।

এ ঘটনায় আরও অন্তত ৬ জনকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় চিকিৎসার জন্য নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতাল ও ঢাকায় প্রেরণ করে আত্মীয় স্বজনেরা।

স্থানীয়দের অভিযোগ, বসুরহাট বাজারের পান বাজার সংলগ্ন রফিক হোমিও দোকান থেকে কেনা স্পিরিট এর সাথে বিভিন্ন কোমল পানীয়ের সঙ্গে মিশিয়ে পান করলে এ ঘটনা ঘটে।

নিহতরা হচ্ছে, উপজেলার মোহাম্মদ নগর গ্রামের মৃত ফয়েজ আহমদ’র ছেলে মহিন উদ্দিন (৪০), বসুরহাট পৌরসভা ৮নং ওয়ার্ডের বাঁশ ব্যাপারী বাড়ির নুর নবী মানিক (৫০), পৌরসভা ৮নং ওয়ার্ডের ক্ষীরত মহাজন বাড়ির অনিল রায়’র ছেলে রবি লাল রায় (৫৭), চরকাঁকড়া ইউনিয়নের টেকের বাজার এলাকার আবদুল খালেক (৭২), সিরাজপুর ইউনিয়নের মতলব মিয়ার বাড়ি সংলগ্ন সবুজ (৬০)।

এ ঘটনায় পুলিশ স্পিরিট বিক্রেতার ছেলে প্রিয়মকে আটক করে। তবে স্পিরিট বিক্রেতা হোমিও ডা. জায়েদ ঘটনা আঁচ করেতে পেরে আগেই গা ঢাকা দিয়েছেন।

স্থানীয়দের অভিযোগ, এ দোকানের মালিক জায়েদ ও তার ছেলে প্রিয়ম দীর্ঘ অনেক বছর অনেকটা খোলামেলা ভাবে এ হোমিও দোকানে নেশা জাতীয় দ্রব্য স্পিরিট বিক্রি করে আসছে।

এ বিষয়ে কোম্পানীগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ আরিফুর রহমান বলেন, একাধিক সূত্রে বিভিন্ন স্থানে স্পিরিট পানে ৫ জনের মৃত্যুর খবর শুনে নিহতদের বাড়ি পরিদর্শন করি। ঘটনাস্থল পরিদর্শনকালে একজনের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। আরও একজনের লাশ উদ্ধারের চেষ্টা করছে পুলিশ। এর আগে ৩ জনের দাফন সম্পন্ন করা হয়েছে।

মন্তব্য লিখুন :