বগুড়ায় ‘ল্যাম্পি স্কিন’ রোগে আক্রান্ত হচ্ছে গরু

বগুড়ার নন্দীগ্রাম উপজেলায় অসংখ্য গরু ‘ল্যাম্পি স্কিন’ নামে নতুন ভাইরাসজনিত সংক্রামক রোগে আক্রান্ত হয়েছে। উপজেলার বিভিন্ন গ্রামে ছড়িয়ে পড়েছে এ রোগ। ফলে দিশেহারা হয়ে পড়েছেন গবাদিপশু পালনকারীরা।

সরেজমিনে বিভিন্ন গ্রাম ঘুরে দেখা যায়, উপজেলার মির্জাপুর দামগাড়া, কালিকাপুর, জামালপুর, ভাদরা, হাটুয়া, আলাইপুর, ডেরাহার, গোছন, বনগ্রাম, হরিহারা, তৈয়বপুর, ভাদুম, হাটলাল, উত্তর সৈয়তপুর, কাথম, ঢাকইরসহ বিভিন্ন গ্রামে গরুর মধ্যে ‘ল্যাম্পি স্কিন’ নামে নতুন ভাইরাসজনিত এই সংক্রামক রোগটি ছড়িয়ে পড়েছে। ক্রমাগত বাড়ছে এ রোগে আক্রান্ত গুরুর সংখ্যা। আক্রান্ত গরুগুলোকে এ রোগ থেকে কিভাবে রক্ষা করবেন তা বুঝতে পারছেন না গবাদিপশু পালনকারী ও খামারিরা।

এদিকে, প্রতিষেধক না থাকায় উপজেলা জুড়ে এ রোগ ছড়িয়ে পড়ছে বলে জানিয়েছে উপজেলা প্রাণিসম্পদ অধিদপ্তর। গরু পালনকারীরা বলেন, ‘ল্যাম্পি স্কিন’ রোগে আক্রান্ত গরুর পা প্রথমে ফুলে যায়। এরপর জ্বর হয়ে দুই থেকে তিন দিনের মধ্যে গরুর সমস্ত শরীরে বসন্তের মতো ফোঁসকা দেখা দেয়। যা পরবর্তীতে ঘায়ে পরিণত হচ্ছে।

তারা বলেন, এ সময় গরুর শরীরে অতিরিক্ত তাপমাত্রা দেখা দেয় এবং খাওয়া-দাওয়া ছেড়ে দেয় গবাদিপশুটি। অনেক সময় গরুর বুকের নিচে পানি জমে ক্ষত সৃষ্টি হয় এবং ক্ষতস্থান পচে গিয়ে সেখান থেকে মাংস খসে পড়ে। ফলে গবাদিপশু পালনকারী ও খামারিদের মধ্যে এ নিয়ে আতঙ্ক দেখা দিয়েছে।

উপজেলার মির্জাপুর দামগাড়া গ্রামের খলিলুর রহমান জানান, তার গবাদিপশুসহ ওই গ্রামের অসংখ্য মানুষের গৃহপালিত গরুর গায়ে গুটি বসন্তের মতো গুটি বের হয়েছে। চিকিৎসা করেও ভালো হচ্ছে না এ রোগ।

তিনি বলেন, এই রোগ দেশজুড়ে ছড়িয়ে পড়েছে বলে টিভিতে প্রচারিত খবরে শুনলাম। খবরটি শুনে এখন সবার হতাশা আরও বেড়ে চলেছে।

উপজেলা প্রাণিসম্পদ অফিসার ডা. শফিউল আলম বলেন, উপজেলাজুড়ে ‘ল্যাম্পি স্কিন’ নামে নতুন ভাইরাসজনিত রোগ ছড়িয়ে পড়েছে। এখন পর্যন্ত এ রোগের কোনো ভ্যাকসিন বা প্রতিষেধক নেই। বিষয়টি ইতোমধ্যেই ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানানো হয়েছে।

তিনি বলেন, উপজেলায় কতগুলো গরু এ পর্যন্ত আক্রান্ত হয়েছে তা এখনো জরিপ করা হয়নি। তবে, অনেক স্থান থেকেই গরুর ‘ল্যাম্পি স্কিন’ ভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার খবর পাওয়া যাচ্ছে বলেও উল্লেখ করেন তিনি।

মন্তব্য লিখুন :