জামালপুরে ছাত্রীকে যৌন হেনস্তা করে কারাগারে শিক্ষক

জামালপুরের বকশীগঞ্জ উপজেলায় শিক্ষার্থীকে শ্লীলতাহানির মামলায় রুকুনুজ্জামান নামে এক মাদ্রাসা শিক্ষককে জেলহাজতে প্রেরণের নির্দেশ দিয়েছেন বিচারক।
বৃহস্পতিবার (৫ সেপ্টেম্বর) দুপুরে বকশীগঞ্জ থানা পুলিশ তাকে আদালতে হাজির করলে সংশ্লিষ্ট বিচারক জামিন নামঞ্জুর করে ওই আদেশ দেন।

জানা যায়, উপজেলার এক মহিলা আলিম মাদ্রাসার অষ্টম শ্রেণিতে প‍ড়ুয়া বুদ্ধি প্রতিবন্ধী ওই ছাত্রীকে শ্লীলতাহানির অভিযোগ উঠে একই প্রতিষ্ঠানের জুনিয়র শিক্ষক রুকুনুজ্জামানের বিরোধে। অভিযোগে প্রেক্ষিতে বুধবার রাতে নিজ বাড়ি থেকে অভিযুক্ত ওই শিক্ষককে গ্রেপ্তার করে বকশীগঞ্জ থানা পুলিশ।

জানা গেছে, গত ১৫ জুলাই মাদ্রাসার পাশেই নিজ বাড়িতে পড়াশুনা করছিল ওই শিক্ষার্থী। বাড়িতে কেউ না থাকার সুযোগে শিক্ষক রুকুনুজ্জামান ওই ছাত্রীকে শ্লীলতাহানি করে।

এই ঘটনায় পরের দিন ১৬ জুলাই মাদ্রাসার অধ্যক্ষ বরাবর অভিযোগ দেন ওই ছাত্রী। অভিযোগের প্রেক্ষিতে তিন সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়। ঘটনার পর থেকে ওই শিক্ষক মাদ্রাসায় যাওয়া বন্ধ করে দেন।

৪ সেপ্টেম্বর অভিযুক্ত ওই শিক্ষকের বিচার দাবি করে এলাকাবাসীর পক্ষ থেকে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা দেওয়ান মোহাম্মদ তাজুল ইসলামের কাছে স্বারকলিপি প্রদান করা হয়। একই সময়ে রুকুনুজ্জমানের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য ইউএনওর কাছে লিখিত অভিযোগ দেন মাদ্রাসার অধ্যক্ষ আবদুর রশিদ।

বকশীগঞ্জ থানার ওসি এ.কে এম মাহবুব আলম জানান, অভিযোগের প্রেক্ষিতেই শিক্ষক রুকুনুজ্জামানকে গ্রেপ্তার করে আদালতে সোপর্দ করা হয়েছে।

মন্তব্য লিখুন :