স্বেচ্ছা কোয়ারেন্টিনে গেলেই পুরস্কার দেবেন প্রতিমন্ত্রী

করোনার সংক্রমণ রোধে রাজশাহীজুড়ে চলছে অঘোষিত ‘লকডাউন’। তবুও নানা কৌশলে বাইরের জেলা থেকে গ্রামে ফিরছেন শ্রমজীবী মানুষ।

খবর পেলে তাদের হোম কোয়ারেন্টিনের আওতায় আনছে পুলিশ। তবে রাজশাহীর বাঘা ও চারঘাট উপজেলায় যারা স্বেচ্ছায় প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টিনে আসবেন, তাদের পুরস্কারের ঘোষণা দিয়েছেন স্থানীয় সংসদ সদস্য ও পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম।

রোববার (১২ এপ্রিল) দিনগত রাতে ফেসবুকে নিজের টাইম লাইনে একটি স্ট্যাটাস দিয়ে এমন ঘোষণা দেন তিনি।

রাজশাহী-৬ আসনের সংসদ লেখেন, আক্রান্ত এলাকা থেকে আসাদের আগামী সোমবার (১৩ এপ্রিল) থেকে ১৪ দিন প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টিনে বাধ্যতামূলক রাখার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছি আমরা চারঘাট ও বাঘায়। প্রাতিষ্ঠান নির্দিষ্ট করা হয়েছে। প্রয়োজনে আমরা তিনবেলা খাবার সরবরাহ করবো। নারীদের জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে অথবা বিশেষ ব্যবস্থায় তারা নিজের বাসাতেই থাকবেন।

প্রতিমন্ত্রী আরও লেখেন, আশাকরি সবাই বুঝবেন যে সার্বিক ভালোর জন্যই এ সিদ্ধান্ত। সবার সহযোগিতা কামনা করছি। যারা ফিরেছেন তাদের তালিকা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও মেম্বারদের মাধ্যমেই করেছি। কেউ বাকি থাকলে তাদের অনুরোধ করবো স্বেচ্ছায় এগিয়ে আসার জন্য। আমার ব্যক্তিগত তরফ থেকে ভবিষ্যতে তাদের জন্য পুরস্কারের ব্যবস্থা থাকবে।

তবে বাইরে থেকে এসেও কোয়ারেন্টিনে না গেলে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা গ্রহণেরও হুঁশিয়ারি দেন শাহরিয়ার আলম। ফেসবুকে তিনি লেখেন, কেউ ফাঁকি দেয়ার চেষ্টা করলে সংক্রমণ রোগ প্রতিরোধ আইন অনুযায়ী তাদের বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। আমার নির্বাচনী এলাকার যাদের এ পোস্টটি নজরে আসবে তাদের অনুরোধ করবো বিষয়টি সবাইকে জানিয়ে দিতে।

দেশে করোনা ভাইরাস সংক্রমিত কোভিড-১৯ রোগের রোগী শনাক্ত হয় গত ৮ মার্চ। এরপর একে একে দেশের ছয় বিভাগেই করোনা ছড়িয়ে পড়ে। বাকি ছিল শুধু রাজশাহী বিভাগ। রোববার এ বিভাগের রাজশাহী জেলার পুঠিয়া উপজেলায় করোনার রোগী শনাক্ত হয়। এলাকাটি রাজশাহী শহর থেকে পূর্বে এবং পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রীর নির্বাচনী এলাকা বাঘা-চারঘাটের পাশেই।