রাজীবপুরে চাঁদা না দেয়ায় ব্যবসায়ীকে পিটিয়ে জখম

কুড়িগ্রামের রাজীবপুর উপজেলায় চাঁদা না দেয়ায় আব্দুর রশিদ (৫০) নামে এক বালু ব্যবসায়ীকে পিটিয়ে গুরুতর জখম করেছে আ. মজিদ (৫২) ও তার লোকজন। পরে স্থানীয়রা আব্দুর রশিদকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে।

সোমবার (২৫ মে) উপজেলার সদর ইউনিয়নের আজগর দেওয়ানী পাড়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। 

আহত বালু ব্যবসায়ী আব্দুর রশিদ টাঙ্গালিয়া পাড়া গ্রামের মৃত ইনছানের ছেলে।

জানা যায়, আব্দুর রশিদের সাথে গত কয়েক মাস আগে বালু পরিবহনের জন্য সড়ক ব্যবহার করা নিয়ে বালুর গাড়ি প্রতি চাঁদা দাবি করে আজগর দেওয়ানী পাড়া গ্রামের আ. মজিদ। চাঁদা দিতে অস্বীকার করায় তাদের দুজনের মধ্যে বাকবিতণ্ডা হয়। সেই ঘটনার জেরে আব্দুর রশিদ ঈদের দিন সোমবার ওই এলাকায় গেলে আ. মজিদ তার ছেলেসহ আরও কয়েকজন তার উপর দেশিয় অস্ত্র নিয়ে অতর্কিত হামলা করে। এতে আব্দুর রশিদ গুরুতর জখম হয় এবং তার একটি চোখ আঘাতপ্রাপ্ত হয়। 

পরে আহত অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে স্থানীয়রা রাজীবপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে। সেখানেই তিনি চিকিৎসাধীন আছেন। 

এ ঘটনায় রাজীবপুর থানায় সোমবার দিবাগত রাতে আব্দুর রশিদ বাদী হয়ে আ. মজিদ (৫২), আ. সাত্তার (৫৮), সাগর আলী (৩৪), মাজম আলী (৩৭), সোহেল মিয়া (২২), সবুর আলী (২৭), জহুরুল ইসলাম (৩০), সহিজল হক (২২), ও মাইদুল ইসলাম (২২) সহ আজ্ঞাতনামা আরও কয়েকজনের বিরুদ্ধে থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক উপজেলা স্যালোঘাট এলাকার কয়েকজন বলেন, আ. মজিদ দস্যু প্রকৃতির লোক। বালুবাহী গাড়ি থেকে চাঁদা তোলা ছাড়াও ঘাটের অসহায় ব্যবসায়ীদের কাছ থেকে চাঁদা তোলেন তিনি। এই কাজে তাকে সহায়তা করে তার ছেলেরা।

হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আব্দুর রশিদ অভিযোগ করে বলেন, দীর্ঘদিন থেকে আমি বালুর ব্যবসা করছি। চাঁদা না দেওয়ায় আমার উপর হামলা করল তারা। আমি এর বিচার চাই। 

এ বিষয়ে জানতে চাইলে রাজীবপুর থানার অফিসার ইনচার্জ গোলাম মোর্শেদ তালুকদার বলেন, লিখিত অভিযোগ পেয়েছি। বিষয়টি তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।