ধোনিকে বাদ দেওয়ার পেছনে কোহলি!

ওয়েস্ট ইন্ডিজ ও অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে টানা দুই টি-২০ সিরিজ থেকে বাদ দেওয়া হয়েছে ভারতের সাবেক অধিনায়ক মহেন্দ্র সিং ধোনিকে। গুঞ্জন উঠেছে বর্তমান অধিনায়ক ভিরাট কোহলির পরামর্শেই মি. ফিনিশারকে বাদ দিয়ে তার জায়গায় রিশাভ পান্টকে দলে টানা হয়েছে। এ নিয়ে ধোনি ভক্তরা কোহলিকে ধুয়ে দিচ্ছেন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে। বিষয়টি এমন পর্যায়ে গেছে যে শেষ অবধি মুখ খুলতে বাধ্য হয়েছেন কোহলি।

বৃহস্পতিবার (১ নভেম্বর) ভারত অধিনায়ক দাবি করেছেন, ধোনির ইচ্ছেতেই তরুণ পান্ট সুযোগ পেয়েছেন। ধোনিই জাতীয় টি-টোয়েন্টি দলে পান্টের ঢোকার রাস্তা করে দিয়েছেন।

তিনি বলেন, আমি যদি ভুল না হই তা হলে বলতে পারি নির্বাচকেরা ইতিমধ্যে এই বিষয়ে মিডিয়ায় বলে দিয়েছেন। সবচেয়ে বড় কথা, ওর (ধোনি) সঙ্গেও এই নিয়ে কথা বলেছেন। আমি সেই আলোচনায় ছিলাম না।

কোহলি বলেন, আমার মনে হয়, লোকজন ব্যাপারটার গায়ে বড্ড বেশি রঙ চড়াচ্ছে। সেরকম কিছু যে আদৌ নয় সেটা আমি আপনাদের নিশ্চিত করতে পারি। এমএস এখনও ভীষণ ভাবেই আমাদের টিমের অঙ্গ। ওয়ানডে-তে ভারতের হয়ে ধোনিই খেলবে। আর সেদিক দিয়ে ধোনি নিজেই চেষ্টা করছে আমাদের অন্য শর্ট ফরম্যাটের দলে তরুণ কাউকে সুযোগ দেওয়ার কাজে সাহায্য করতে।

তবে, কোহলির কথায় ইঙ্গিত মিলেছে, জাতীয় টি-২০ দলে ধোনির ফেরার সম্ভাবনা কম।

ধোনি টেস্ট ক্রিকেটকে বিদায় বলেছেন বেশ আগে। ওয়ানডেতেও ব্যাট হাতে যে পারফরম্যান্স, তাতে দলে টিকে থাকা প্রশ্নের মুখে। দুই বছর ধরেই তার ব্যাটিং নিয়ে চলছে সমালোচনা। তাকে বাদ দেওয়ার দাবিও উঠেছিল কয়েকবার। তবে এ বছরের শুরু দিকে কয়েকটি দারুণ ইনিংসের সুবাদে সে দাবি মাটিতে মিশে যায়। এরপর সর্বশেষ দুই সিরিজে আবার ব্যর্থতা। সব মিলিয়ে তার বাদ পড়াটা খুব একটা অস্বাভাবিক কিছু না। যদিও ধোনি ভক্তরা এটি মানতে নারাজ।

মন্তব্য লিখুন :