মাইকেল ভনকে ব্লক করে দিলেন মাঞ্জরেকার

দলকানা ধারা বিবরণীর যেসব ধারাভাষ্যকর সবচেয়ে বেশি সমালোচিত তাদের মধ্যে অন্যতম ব্যক্তির নাম সঞ্জয় মাঞ্জরেকার। ভারতের সাবেক এই ক্রিকেটার নিজ দলের প্রতি এতটাই ‘নিবেদিত’ যে তার ধারাভাষ্যে বিরক্ত হয়ে কয়েকদিন আগেই আইসিসির কাছে লিখিত অভিযোগ করেছিলেন অস্ট্রেলিয়া প্রবাসী এক ভারতীয়। 

এছাড়াও বিভিন্ন সময়ে বাংলাদেশের অধিকাংশ খেলোয়াড়দেরও প্রাপ্ত সম্মান না দিয়ে তাদের সমালোচনায়ও মুখর হন তিনি। শুধু প্রতিপক্ষ দলের খেলোয়াড়দের সমালোচনা করেই খান্ত হননি তিনি। এখন উঠেপড়ে লেগেছেন মহেন্দ্র সিং ‘ধোনি এন্ড কোং’য়ের বিরুদ্ধে। 

প্রথমে ধোনির ধীরগতির খেলা নিয়ে ব্যাপক সমালোচনার পর তার কাছের সতীর্থ রবীন্দ্র জাদেজাকে নিয়েও চুপ বসে থাকেননি সাবেক এই ভারতীয় খেলোয়াড়। জাদেজাকে ‘ছোটখাটো’ খেলোয়াড় হিসেবে উল্লেখ করার পর চুপ করে বসে থাকেননি জাদেজা নিজেও। মাইক্রো ব্লাগিং সাইট টুইটারে নিজের ক্ষোভ উগড়ে দিয়েছেন মাঞ্জরেকারের ওপর, ‘অনেক কথা শুনেছি আপনার। এবার মুখটা বন্ধ রাখুন। আপনার চেয়ে দ্বিগুণ বেশি ম্যাচ আমি খেলেছি, আর এখনো খেলছি। মানুষকে তার কৃতিত্বের মর্যাদা দিতে শিখুন।’

মাঞ্জরেকারের সাথে জাদেজার এই টুইট চালাচালি নিয়ে বেশ কয়েকদিন ভক্তদের মধ্যে কম আলোচনা হয়নি। সর্বশেষ নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে সেমিফাইনালে নামার আগে মাঞ্জরেকারের ঘোষিত  ভারতের একাদশের নামে লিস্টে জাদেজার নাম দেখে তাই চমকে গিয়েছিলেন ইংল্যান্ডের সাবেক খেলোয়ার মাইকেল ভন। যাকে নিয়ে কয়েকদিন আগেই ব্যাঙ্গ করা হল সেই তাকেই আবার একাদশে রাখার বিষয়টি নিয়ে মাঞ্জরেকারকে খোচা মারতে একটু ছাড় দেননি ভন। এর জন্য ভনের ট্রোল হজম করতে হয় ভারতের প্রাক্তন এই ক্রিকেটারকে।

জাদেজাকে একদিনের ক্রিকেটে খারাপ ক্রিকেটার বলার পরেও সেমিফাইনালের দলে রাখেন মাঞ্জরেকার। সেই দল দেখার পরেই টুইট যুদ্ধ শুরু হয়ে যায় দুইজনের। মাঞ্জরেকারকে কটাক্ষ করে মাইকেল ভন বলেন, ‘যাকে তুমি সাধারণ মানের ক্রিকেটার বললে, তাকেই আবার তুমি দলে রাখলে!’

ভনের এই খোচার পাল্টা জবাব হিসেবে মাঞ্জরেকার লিখেন, ‘এটা আমার পছন্দের দল নয়। এটা সেমিফাইনালে ভারত যে দল নামাবে, তারই সম্ভাব্য একাদশ।’ তার পরেও থামেনি দুইজনের টুইট যুদ্ধ। একে অপরকে কথার প্যাঁচে আক্রমণ করতে থাকেন তাঁরা। এরপর ভন টুইট করে জানান, তাঁকে ব্লক করে দিয়েছেন সঞ্জয়।

মন্তব্য লিখুন :