১০০ কোটির বিনিময়ে কুকুরের সঙ্গে সঙ্গমের প্রস্তাব নায়িকাকে

#মিটু ঝড়ে উত্তাল এখন পুরো ভারত। মন্ত্রী থেকে শুরু করে বহুজাতিক কোম্পানীর শীর্ষ কর্মকর্তা, কেউ পার পাচ্ছেন না এই ঝড় থেকে। তবে ঝড়টা সবচেয়ে বেশি যাচ্ছে যেখান থেকে শুরু মানে বলিউডের উপর দিয়ে। আর এই ঝড়ে সবচেয়ে বেশি সমস্যায় পড়েছেন পরিচালক ও প্রযোজক সাজিদ খান। ফারাহ খানের ভাইয়ের বিরুদ্ধে অন্তত পাঁচজন নারী যৌন হেনস্তার অভিযোগ তুলেছেন।

সাজিদ খানের বিরুদ্ধে অভিনেত্রী সালোনি চোপড়া, র‍্যাচেল হোয়াইট, মন্দানা করিমি ও সাংবাদিক কারিশমা উপাধ্যায় যৌন হেনস্তার অভিযোগ করেন। এ ছাড়া জ্যেষ্ঠ অভিনেত্রী বিপাশা ব্সুও সাজিদের ‘আপত্তিকর আচরণ ও নোংরা কৌতুক’ করার স্বভাবের কথা বলেন।

এবার অভিযোগ তুলেছেন আরেক নায়িকা অহনা। ‘লিপস্টিক আন্ডার মাই বোরখা’ খ্যাত এই অভিনেত্রী টাইমস অব ইন্ডিয়াকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে বলেন, এক বছর আগে সাজিদ খানের সঙ্গে দেখা করি আমি। সে অফিসে না ডেকে আমাকে তার বাড়ি ডেকে নেয়।

তিনি বলেন, বাড়িতে যাওয়ার পর ও আমাকে নিজের ঘরে নিয়ে যায়, যে ঘরটা খুবই অন্ধকার। নিজের বেডরুমে নিয়ে আসার কারণ জিজ্ঞাসা করলে বলে বাইরে তাঁর মা বসে আছেন এবং তাঁর যেন কোনো সমস্যা না হয়, তাই সে তাঁকে ঘরে নিয়ে এসেছে। পরে আমার অনুরোধে সে ঘরের লাইট জ্বালিয়ে দেয়। আমি ওর স্বভাব জানি বলে আগেই বলে দেই আমার মা পুলিশ কর্মকর্তা।

অহনা বলেন, এতে ও কিছুটা দমলেও নিজের অভ্যাস ছাড়তে পারেনি। যদি আমি তোমাকে ১০০ কোটি রুপি দিই, তবে কি তুমি কুকুরের সঙ্গে সঙ্গম করতে পারবে? এতে আমি পুরোপুরি হকচকিয়ে যাই। তবে ও আমার শরীরে স্পর্শ করেনি।

হেনস্তার অভিযোগ ওঠার পর সাজিদ খান ‘হাউসফুল-৪’ থেকে নিজেকে গুটিয়ে নেন। অভিযোগ ওঠার পর নিজের বোন ফারাহও সাজিদের বিরুদ্ধে কথা বলেন।

তারকা কাস্টিং ডিরেক্টর অনির্বাণ দাস ব্লায়ের বিরুদ্ধেও যৌন হেনস্তার অভিযোগ এনেছেন এই নায়িকা।

মন্তব্য লিখুন :