রিপোর্ট মানতে নারাজ তনুশ্রী

গেল বছর অভিনেতা নানা পাটেকরের বিরুদ্ধে যৌন হেনস্তার অভিযোগ এনেছিলেন সাবেক মিস ইন্ডিয়া ও বলিউড অভিনেত্রী তনুশ্রী দত্ত। মূলত তার অভিযোগের প্রেক্ষিতে বলিউডে হ্যাশট্যাগ মিটু আন্দোলনের সূত্রপাত হয়।

তনুশ্রীর অভিযোগ ছিল, হর্ন ওকে প্লিজ ছবির শুটিং চলাকালীন তার সঙ্গে অশোভন আচরণ করেন নানা পাটেকর। এরপর বিষয়টি নিয়ে বেশ আলোচনা-সমালোচনা হয়। দীর্ঘদিন ধরে আদালতে এর শুনানি চলছিল। সম্প্রতি মুম্বাই পুলিশ এই মামলার একটি বি সামারি রিপোর্ট জমা দিয়েছে। এই রিপোর্টে নানা পাটেকর নির্দোষ প্রমাণিত হয়েছেন। তবে  তনুশ্রী দত্ত এই রিপোর্ট মানতে নারাজ।

অভিনেত্রীর আইনজীবী ইতিমধ্যে জানিয়েছেন তারা এই রিপোর্টের বিরোধিতা করে আদালতে একটি এফিডেবিট পেশ করবেন। আগামী ৭ সেপ্টেম্বর এই কেসের পরবর্তী শুনানি।

অভিনেত্রী তনুশ্রী শুধু যে নানা পাটেকরের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করেছিলেন তা নয়। কোরিওগ্রাফার গণেশ আচার্য, প্রযোজক সমীর সিদ্দিকি ও পরিচালক রাকেশ সারংয়ের বিরুদ্ধেও হেনস্থার অভিযোগ এনেছিলেন তিনি।

১১ বছর আগের ঘটনা। তদন্ত করার স্বার্থে পুলিশ দ্বারস্থ হন ওইদিন শুটিংয়ে উপস্থিত ছিলেন এমন দুজন জুনিয়র কোরিওগ্রাফারের। তাদের ভাষ্য মতে,  হর্ন ওকে প্লিজ-এর একটি আইটেম গানে  নানা ও তনুশ্রীর একসঙ্গে পারফর্ম করার কথা ছিল। নানা ও তনুশ্রী আলাদা আলাদা জায়গায় দাঁড়িয়ে তাদের ডান্স প্রাকটিস করছিলেন। যখন শুটিং শুরু হয়, তখন তনুশ্রীর পিছনে দাঁড়িয়েছিলেন নানা। কিন্তু দুজনের মধ্যে বেশ কয়েক ফুটের দূরত্ব ছিল। তবে নাচের দৃশ্যের শুটিং শুরু হওয়ার কিছুক্ষণের মধ্যেই তনুশ্রী হঠাৎ অত্যন্ত রেগে গিয়ে ফ্লোর ছেড়ে যান।

প্রমাণ না থাকায় নানা পাটেকর ও তার সহযোগীরা অভিযোগ থেকে মুক্তি পাচ্ছেন। তবে রিপোর্ট মানতে চাচ্ছেন না অভিনেত্রী তনুশ্রী।

মন্তব্য লিখুন :