'স্বপ্ন ভেঙে গেছে' লিখে অভিনেত্রীর আত্মহত্যা

ক্রাইম পেট্রেল থেকে লাল ইস্ক, মেরি দুর্গা-র মতো বেশ কয়েকটি জনপ্রিয় ধারাবাহিকে দেখা যায় তাঁকে। মাত্র ২৫-এই টেলিভিশনের দুনিয়ায় নিজের নাম, যশ তরি করে ফেলেছিলেন। সেই উঠতি অভিনেত্রী প্রেক্ষা মেহতার আত্মহত্যা নিয়ে ইতিমধ্যেই বেশ কয়েকটি প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে।

একটি সংবাদমাধ্যমের সাক্ষাতকারে প্রেক্ষার বাবা জানান, লকডাউনের জন্য ক্রমশ বিমর্ষ হয়ে পড়ছিলেন তাঁর মেয়ে। সংবাদে যখনই লকডাউনের খবর দেখানো হত কিংবা লকডাউন বাড়িয়ে দেওয়া হয়েছে মুম্বাইতে, এই খবর প্রকাশ পায়, তখনই মন ভেঙে যায় প্রেক্ষার। তবে তাঁর বাবা সব সময় মেয়েকে বোঝাতেন যে এই পরিস্থিতি এক সময় পাল্টে যাবে। বুঝতে না চাইলেও, প্রেক্ষা যে এই ধরনের কোনও সিদ্ধান্ত নেবেন, তা কল্পনাও করতে পারেননি বলে জানান অভিনেত্রীর বাবা।

পাশাপাশি বিয়ের আগে রূপোলি পর্দায় নিজের নাম, যশ, প্রতিপত্তি তৈরি করতে চেয়েছিলেন প্রেক্ষা। তারজন্য এই মুহূর্তে তিনি বিয়ে করবেন না। আগামী ২-৩ বছর যাওয়ার পর তবেই তিনি বিয়ে করবেন বলেও বাবাকে জানান। সেই কারণেই বিয়ের জন্য মেয়েকে তাঁরা কখনওই জোর জবরদস্তি করতেন না বলেও দাবি করেন প্রেক্ষার বাবা। তবে সুইসাইড নোটে কেন প্রেক্ষা স্বপ্ন ভেঙে যাওয়ার কথা বললেন, তা কিছুতেই বোধগম্য না বলেও জানান ওই ব্যক্তি।

মৃত্যুর আগে নিজের ইনস্টা হ্যান্ডেলে প্রেক্ষা জানান, গত ২-৩ বছর থেকে অনেক চেষ্টা করেছেন সবকিছু ঠিক করার কিন্তু আর পারছেন না। ভেঙে যাওয়া স্বপ্ন নিয়ে কখনওই বেঁচে থাকা সম্ভব নয় বলেও নিজের সোশ্যাল হ্যান্ডেলে শেয়ার করেন টেলিভিশনের এই প্রতিভাময়ী অভিনেত্রী। মৃত্যুর আগে প্রেক্ষা কেন এই ধরনের কথা লিখলেন, এখন সেই সূত্রই হাতড়াতে শুরু করেছে পুলিশ।