তামিমার পাসপোর্টের কপি নিয়ে হাজির সুবাহ

নাসির হোসেনের বিয়ে নিয়ে জল ঘোলা হয়েই চলেছে। এর কারণ নাসিরের স্ত্রী তামিমার আগের বিয়ে। এ নিয়ে মামলা করেছেন তামিমার প্রথম স্বামী রাকিব। তার দাবি তাকে তালাক না দিয়েই তামিমা নাসিরকে বিয়ে করেছেন।

তবে তামিমা বলেন, আমি তালাকের জন্য আবেদন করি ২০১৬ সালে। তা অনুমোদন হয় ২০১৭-তে। সম্পূর্ণ আইনিভাবে সবকিছু মেনে ডিভোর্সটা হয়।

এদিকে, এই ঘটনায় নতুন মাত্রা দিয়ে যাচ্ছেন নাসিরের সাবেক প্রেমিকা শাহ হুমায়রা সুবাহ। নাসিরের সংবাদ সম্মেলনের পর সোশ্যাল মিডিয়ায় সরব হন সুবাহ। সংবাদ সম্মেলনে নাসির হোসেন উপস্থাপন করেন তামিমা ও রাকিবের বিয়ে বিচ্ছেদ হয়েছে ২০১৭ সালে। ২০১৬ সালে বিয়ে বিচ্ছেদের আবেদন করেছিলেন তারা। কিন্তু সুবাহ হাজির তামিমার পাসপোর্টের কপি নিয়ে। ২০১৮ সালের এই পাসপোর্ট কপিতে দেখা যায় তামিমার স্বামীর নামের পাশে রাকিব লেখা একই সাথে জরুরি প্রয়োজনে যোগাযোগ নম্বরও রাকিবের।

সুবাহ'র এই পোস্টে তিনি লিখেছেন, 'কিছু প্রমাণ দিলাম। জানিনা ঘটনা আসল কি। যাচাই করুন রাকিব ভাইয়াকে ফাঁসানো হচ্ছে এবং হবে। তামিমার পাসপোর্ট ২০১৮ সালের স্বামীর নাম দেয়া রাকিব হাসান।  তাহলে ১৬ সালের জাল তালাক নামা আবার কিসের?'

নাসির হোসেন সম্প্রতি তামিমাকে বিয়ে করার পর একের পর এক লাইভে এসে এ নিয়ে নানা কথা বলছেন সুবাহ। সেগুলো আসছে আলোচনায়ও।

তবে রাকিব নামে এক ব্যক্তি তামিমা তাম্মিকে তার স্ত্রী দাবি করায় বিয়ে নিয়ে বির্তক এখন তুঙ্গে।