রোনালদোর জন্য পর্তুগালের দরজা কি বন্ধ হচ্ছে?

গত মাসে দুটি প্রীতি ম্যাচ খেলেছে পর্তুগাল। দুই ম্যাচেই দেখা যায়নি অধিনায়ক ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদোকে। অধিনায়ককে বাদ দেওয়ার যুক্তি হিসেবে দেখানো হয়েছিল নারী কেলেঙ্কারি। তবে এখন মনে হচ্ছে বিষয়টা অন্য কিছু। কারণ সামনের দুই ম্যাচ থেকেও বাদ দেওয়া হয়েছে পর্তুগালের সর্বকালের সেরা এই তারকাকে।

যে কেউ বাদ পড়তেই পারে এটা স্বাভাবিক। তবে যখন একজন খেলোয়াড় অসাধারণ ফর্মে থাকে তখন তাকে বাদ দেওয়াটা কিছুটা সন্দেহের জন্ম দেয় বৈকি। রোনালদোকে নিয়েও তৈরি হয়েছে সন্দেহ, তাহলে কি তাকে উপেক্ষিত করছে জাতী দল। কোচের কথায় অন্তত এমনটাই বোঝা গেল।

নেশনস লিগে ইতালি এবং পোল্যান্ডের বিরুদ্ধে ম্যাচের জন্য দল ঘোষণা করা হয়েছে রোনালদোকে ছাড়াই। এরপরই পর্তুগালের কোচ ফের্নান্দো স্যান্টোস বলেছেন, আমি রোনান্দোকে নিয়ে একটাই কথা বলতে পারি। আশা করব, ও আরও ব্যালন ডি’অর জিতুক। ওর এই পুরস্কার প্রাপ্য এবং না পেলে অন্যায় হবে।

তাঁর মন্তব্য শুনে মনে হচ্ছে, দেশের হয়ে খেলার জন্য খুব মুখিয়ে হয়তো নেই সিআরসেভেন। তাই কোচের এমন ‘কটাক্ষ’।

স্যান্টোস জানাননি, পরের ম্যাচগুলিতেও রোনালদোকে দেখা যাবে কি না। উল্টে বলে দিয়েছেন, এটা শুধু রোনালদোকে নিয়ে ব্যাপার নয়। একটা দলের ব্যাপার। কাউকেই বাদ দেওয়া হচ্ছে না। এটা নিয়ে এত হইচইয়েরও কিছু নেই।

তবে সান্টোসের এমন কথা বোঝাই যাচ্ছে ৩৪ বছর বয়সী এ তারকার আন্তর্জাতিক ক্যারিয়ার শেষের দিকে চলে আসছে। এখন দেখা যাক সামনের ম্যাচগুলোতে যদি তাকে ডাকা হয়।

মন্তব্য লিখুন :