বন্ধ হয়ে যেতে পারে চ্যাম্পিয়ন্স লীগ

রিয়াল মাদ্রিদ, বার্সেলোনা, বায়ার্ন মিউনিখ, ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড,পিএসজিসহ ইউরোপের বড় বড় ক্লাবগুলো আর তাদের নিজস্ব লীগ এবং চ্যাম্পিয়ন্স লীগ খেলবেন না। অবাক করার মর তথ্য হলেও এমনটাই বলছে "ফুটবল লিকস"। সংস্থাটির প্রতিবেদনে আরো বলা হয় "উয়েফা সুপার লীগ" নামের আরেকটি নতুন লীগে খেলার ইচ্ছা পোষণ করছে তারা।

এমনটা হলে বন্ধ হয়ে যেতে পারে চ্যাম্পিয় ন্সলীগসহ অন্য বড় বড় লীগগুলো। কারণ রিয়াল, বার্সা, ম্যানইউ, জুভেন্টাস, পিএসজি ছাড়া কোনো লীগ কল্পনাও করা যায় না। আর ক্লাবগুলোর নিজস্ব ইচ্ছাতেই এমনটা হতে যাচ্ছে বলে জানায় সংস্থাটি।

জানা যায়, ঘটনার মূল উদ্যোক্তা ইউরোপের সেরা ১১ ক্লাব—স্প্যানিশ লীগের রিয়াল মাদ্রিদ ও বার্সেলোনা, ইংলিশ প্রিমিয়ার লীগের ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড, চেলসি, আর্সেনাল, লিভারপুল ও ম্যানচেস্টার সিটি, জার্মান লীগের বায়ার্ন মিউনিখ, ইতালিয়ান লীগের জুভেন্টাস আর এসি মিলান, ফরাসি লীগের প্যারিস সেইন্ট জার্মেইন। প্রস্তাবিত ১৬ দলের ‘উয়েফা সুপার লিগে’র বাকি পাঁচ সদস্য হবে আমন্ত্রিত পাঁচ ক্লাব—জার্মানির বুরুশিয়া ডর্টমুন্ড, ইতালির ইন্টার মিলান আর এএস রোমা, ফ্রান্সের অলিম্পিক মার্শেই, স্পেনের অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদ। ২০১৬ থেকেই এমন কিছু একটা হওার আশঙ্কা করা হলেও এবারই প্রথম এত বড় ঘটনা ফাঁস করে আলোচনায় আসে ‘ফুটবল লিকস’।

ফুটবল লিকস আরও জনিয়েছে, এই মূল ১১ ক্লাব একটা কোম্পানি গঠন করে স্প্যানিশ শেয়ারবাজারে নিবন্ধিত হওয়ার পরিকল্পনা এঁটেছে। বিভিন্ন ভাগে যে কোম্পানির মালিকানা থাকবে ওই ১১ ক্লাবের কাছে। এই কোম্পানির সবচেয়ে বড় শেয়ার থাকবে রিয়াল মাদ্রিদের কাছে (১৮.৭৭%), দ্বিতীয় সর্বোচ্চ শেয়ার থাকবে বার্সেলোনার কাছে (১৭.৬১%), তৃতীয় ও চতুর্থ সর্বোচ্চ শেয়ারের মালিকানা থাকবে যথাক্রমে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড (১২.৫৮%) ও বায়ার্ন মিউনিখের (৮.২৯%) কাছে।

যুক্তরাষ্ট্রের চার্লি স্টিলিটানো এই পরিকল্পনার মূল হোতা। আর তাকে মদদ দেওয়ার জন্য উঠেপড়ে লেগেছেন রিয়াল মাদ্রিদ সভাপতি ফ্লোরেন্তিনো পেরেজ। সাথে আছেন বায়ার্ন মিউনিখের চেয়ারম্যান কার্ল হেইঞ্জ রুমেনিগেসহ ইউরোপীয় ফুটবলের রাঘববোয়ালেরা

ফাঁস হওয়া তথ্যমতে ২০২১ সাল থেকে এই নতুন লীগ হওয়ার কথা আছে। এমনটা হলে হয়তো চ্যাম্পিয়ান্স লীগের আর কোনো অস্তিত্ব থাকবে না।  

মন্তব্য লিখুন :