যে কারণে কোপার মেডেল নেননি মেসি

সেমিফাইনালে ব্রাজিলের কাছে হারার পর রাগ আর ক্ষোভের বিস্ফোরণ ঘটিয়েছিলেন মেসি। রেফারির পক্ষপাতমূলক আচরণ নিয়ে তখনই তীব্র সমালোচনা করেন আর্জেন্টিনাইন অধিনায়ক। আর এর পরের ম্যাচেই তাকে দেখতে হলো লালকার্ড। যা কিনা ফুটবল ইতিহাসের কলঙ্ক হয়েই থাকবে।

২০০৫ সালে আর্জেন্টিনার জার্সিতে নিজের অভিষেক ম্যাচেই প্রথম লাল কার্ড দেখেছিলেন মেসি। সেবারের মতো এবারও তিনি ভুল সিদ্ধান্তের শিকার হয়েছেন।

ম্যাচের পরেও নিজের রাগ ঠান্ডা করতে পারেননি আর্জেন্টাইন অধিনায়ক লিওনেল। রেফারির ভুল সিদ্ধান্তের প্রতিবাদের ম্যাচ শেষে বের হননি ড্রেসিং রুম থেকে। নিজেকে বন্দী রাখেন লকার রুমেই। পুরো দল যখন বাইরে নিচ্ছিল তৃতীয় হওয়ার পুরষ্কার, তখন অনুপস্থিতই ছিলেন মেসি।

পরে সংবাদমাধ্যমে ক্ষুদে জাদুকর বলেন, আমরা এমন দুর্নীতির অংশ হতে চাই না। পুরো টুর্নামেন্টজুড়েই রেফারিং ছিলো অত্যন্ত বাজে। এ জন্য পুস্কার নিয়ে নিজেকে কলঙ্কিত করতে চাচ্ছি না।

তিনি বলেন, দুর্ভাগ্যজনক হলেও, আমি এখনই দেখতে পাচ্ছি এবারের শিরোপা জিতবে ব্রাজিল। ফাইনাল ম্যাচে রেফারি কিংবা ভিএআরের কিছুই করার থাকবে না।

ল্যাটিন আমেরিকার ফুটবল কর্তৃপক্ষ কনমেবলকেও ধুয়ে দিয়েছেন এই বার্সা তারকা ফুটবলার। এবারের কোপা আমেরিকাকে দুর্নীতি ও পক্ষপাতমূলকে ভরা বলেছেন মেসি। কোনো রাগঢাক না রেখেই তিনি আরও বলেন, ব্রাজিলকে চ্যাম্পিয়ন করার জন্যই সব হচ্ছে।



মন্তব্য লিখুন :