শেরেবাংলা এ কে ফজলুল হকের ৫৭তম মৃত্যুবার্ষিকী আজ

অবিভক্ত বাংলার মুখ্যমন্ত্রী শেরেবাংলা এ কে ফজলুল হকের ৫৭তম মৃত্যুবার্ষিকী আজ। ১৯৬২ সালের এই দিনে তিনি ঢাকায় শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন।

একজন বাঙালি রাজনীতিবিদ হিসেবে বিশ শতকের প্রথমার্ধে কূটনীতিক ও রাজনৈতিক মহল এবং সাধারণ মানুষের কাছে বাংলার বাঘ এবং হক সাহেব নামে পরিচিত ছিলেন আবুল কাশেম ফজলুল হক।

একে ফজলুল হক বাকেরগঞ্জ জেলার দক্ষিণাঞ্চলের বর্ধিষ্ণু গ্রাম সাটুরিয়ায় ১৮৭৩ সালের ২৬ অক্টোবর জন্মগ্রহণ করেন। তবে তার পূর্বপুরুষদের বাড়ি ছিল বরিশাল শহর থেকে ১৪ মাইল দূরে চাখার গ্রামে। তিনি ছিলেন মুহম্মদ ওয়াজিদ ও সায়্যিদুন্নিসা খাতুন দম্পতির একমাত্র পুত্র। ফজলুল হকের বাবা বরিশাল আদালতের দেওয়ানি ও ফৌজদারি উকিল ছিলেন এবং তার দাদা কাজী আকরাম আলী ছিলেন আরবি ও ফারসিতে দক্ষ পণ্ডিত এবং বরিশালের একজন বিশিষ্ট মোক্তার।

স্যার খাজা সলিমুল্লাহ ও নওয়াব আলী চৌধুরীর কাছে ফজলুল হকের রাজনীতিতে হাতেখড়ি। বর্ণাঢ্য রাজনৈতিক জীবনে তিনি ১৯৩৫ সালে কলকাতার মেয়র, ১৯৩৭ থেকে ১৯৪৩ সাল পর্যন্ত অবিভক্ত বাংলার মুখ্যমন্ত্রী, ১৯৫৪ সালে পূর্ব বাংলার মুখ্যমন্ত্রী, ১৯৫৫ সালে পাকিস্তানের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী এবং ১৯৫৮ সালে পূর্ব পাকিস্তানের গভর্নরের পদসহ বহু উঁচু রাজনৈতিক পদে অধিষ্ঠিত ছিলেন।

শেরেবাংলার মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে বিভিন্ন সামাজিক, রাজনৈতিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠন বিস্তারিত কর্মসূচি গ্রহণ করেছে। কর্মসূচির মধ্যে রয়েছে তার কবরে পুষ্পস্তবক অর্পণ, ফাতিহা পাঠ ও আলোচনা সভা।

বাংলাদেশ ন্যাশনাল আওয়ামী পার্টি ন্যাপ আজ সকালে ফজলুল হকের কবরে পুষ্পস্তবক অর্পণ ও ফাতিহা পাঠ করবে। এছাড়া ন্যাশনাল ডেমোক্রেটিক পার্টি এনডিপি, বাংলাদেশ জাতীয় মানবাধিকার সমিতি, শেরেবাংলা একে ফজলুল হক গবেষণা পরিষদ এ উপলক্ষে বিস্তারিত কর্মসূচি গ্রহণ করেছে।

মন্তব্য লিখুন :