বাসি রুটি খেলে যে উপকারগুলো হবে

বাসি খাবার-দাবারের আমাদের সবসময় এক ধরনের অনিহা কাজ করে। অনেকে তো বাসি খাবার একেবারেই সহ্য করতে পারেন না। যদিও মধ্যবিত্ত পরিবারের বাসি রুটি খাওয়ার প্রচলন রয়েছে। সকালের নাস্তায় অনেকের পাতেই থাকে বাসি রুটি।

তবে গ্যাস্টিক বা অম্বলের সমস্যা দেখা দিলেই বাসি রুটি খাদ্য তালিকা থেকে বাদ যায়। কারণ সবারই ধারণা, বাসি রুটি গ্যাস্টিকের জন্য দায়ী।

তবে চিকিৎসকদের দাবি, বাসি রুটি শরীরের জন্য ক্ষতিকারক নয়। বাসি রুটি খেলে হজমের সমস্যা হয়, এই ধারণা সম্পূর্ণ ভুল উল্লেখ করে চিকিৎসকরা জানাচ্ছেন, সকালে দুধে ভেজানো রুটি খেলে হজমের সমস্যা থেকে মিলতে পারে মুক্তি। এমনকি মানুষের দেহের তাপমাত্রাও নিয়ন্ত্রণ করে বাসি রুটি।

দীর্ঘদিনের পেটের সমস্যায় যারা ভুগছেন, তারা বাসি রুটি দিয়ে সকালের নাস্তা করা শুরু করে দিন। ঘরোয়া পদ্ধতিতে এভাবেই পেটের সমস্যা থেকে পরিত্রাণ পাওয়া যাবে।

উচ্চ রক্তচাপের সমস্যা থাকলে বাসি রুটি খেয়ে দেখুন। রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণের ক্ষেত্রে বাসি রুটির তুলনা নেই বলে জানাচ্ছেন চিকিৎসকরা। ঠাণ্ডা দুধের মধ্যে দশ মিনিট রুটি ভিজিয়ে তারপর তা সকালের নাস্তায় খেয়ে নিন।

ঘরোয়া পদ্ধতিতে ডায়বেটিস সারানোর জন্য হাজারও নিয়ম মেনে ব্যর্থ হয়ে থাকলে বাসি রুটি খেয়ে সমস্যা থেকে রেহাই পাওয়ার চেষ্টা করে দেখুন। চিকিৎসকদের দাবি, ওই বাসি রুটিই নাকি ডায়বেটিস সারাতে ম্যাজিকের মতো কাজ করে।

মন্তব্য লিখুন :