পেপসি ও কোকা কোলার মাঝে পার্থক্যটি আপনি জানেন কী?

পেপসি ও কোকা কোলার মাঝে বিবাদ বহুদিনের। আর এই দুই পানীয়র ভক্তদের মাঝেও রয়েছে বিভেদ। কোকা কোলার ভক্তরা ভুলেও পেপসির দিকে হাত বাড়ান না, আবার এর উল্টোটাও সত্যি। অনেকে আবার ভাবেন, দুটো তো বলতে গেলে একই রকম স্বাদ, এতো রেষারেষির কী আছে? আসলে কিন্তু এই দুইটি পানীয়ের মাঝে রয়েছে বড় একটি পার্থক্য। আপনি কী জানেন, পার্থক্যটি কোথায়?

পেপসি ও কোকা কোলার মাঝে তুলনা করলে দেখা যায়, দুটোতেই আছে সোডিয়াম, চিনি, কার্বোনেটেড ওয়াটার, হাই ফ্রুক্টোজ কর্ন সিরাপ, ফসফরিক এসিড, ক্যাফেইন ও ন্যাচারাল ফ্লেভার।

কিন্তু এসব সাদৃশ্য থাকার পরেও পেপসি আর কোকা কোলার মাঝে বড় একটা পার্থক্য আছে। আর তা হলো পেপসিতে থাকা ফ্লেভারটি। এই ফ্লেভারের কারণেই কেউ পেপসি পছন্দ করে আর কেউ পছন্দ করে কোকা কোলা। পেপসি কোকের চেয়ে বেশি মিষ্টি। আর এতে থাকে লেবুর একটি ফ্লেভার। অন্যদিকে কোকা কোলার ফ্লেভারটি অনেকটা ভ্যানিলার মতো, তাতে লেবুর ফ্লেভারটা থাকে না।

১২ আউন্সের একটি কোলা কোলার ক্যান ও পেপসির ক্যানের মাঝে পার্থক্য একটিই। পেপসিতে থাকে সাইট্রিক এসিড, যার কারণে তাতে লেবুর ফ্লেভার আসে। আর এতে কোকা কোলার তুলনায় ২ গ্রাম চিনি বেশি থাকে। এই পার্থক্যের কারণে কেউ কেউ পেপসি পছন্দ করে, আবার কেউ অপছন্দ করে।  অন্যদিকে কোকা কোলায় ১৫ মিলিগ্রাম সোডিয়াম বেশি থাকে, এ কারণেও তাতে কম মিষ্টি আছে বলে মনে হয়।

মন্তব্য লিখুন :