ছয়টি কাজ বদলে দেবে আপনার জীবন

অভ্যাসের গুরুত্ব মানুষের জীবনে অনেক। ভালো অভ্যাস মানুষকে সফল করে তোলে আর খারাপ কাজের অভ্যাস মানুষের জীবনকে ব্যর্থতায় পর্যবসিত করে। নিন্মের ৬টি অভ্যাস বদলে দিতে পারে আপনার জীবন।

০১. নিয়মিত ধ্যান করুন

বর্তমান যুগে সকালে ওঠার সাথেসাথেই দুনিয়ার সব বিষয় নিয়ে আমাদের মাথায় চিন্তা শুরু হয়ে যায়। ঘুম থেকে উঠার পরই ভাল-মন্দ বিভিন্ন খবরাখবর মস্তিষ্কের চাপ আরও বাড়িয়ে দেয়।
এই চাপ থেকে মুক্তি দিতে পারে নিয়মিত  মেডিটেশন। এতে কতে সারাদিন মাথা ঠান্ডা থাকবে কর্মে আসবে সঠিকতা।

০২. নিজেকে বার বার ভালো কথা বলুন

পৃথিবীর বহু সফল মানুষ নিয়মিত সকালবেলা এই কাজটি করেন। এতে করে আপনি আরও আত্মবিশ্বাসী হয়ে উঠবেন।
ধরুন আপনি ঠিক করেছেন ১ বছরের মধ্যে আপনি মাসে ১ লক্ষ টাকা আয় করবেন। এখন যদি প্রতিদিন সকালে উঠে মেডিটেশন বা প্রার্থণা করার পর কয়েক মিনিটের জন্য বার বার বলতে থাকেন, “আমি আগামী এক বছরের মধ্যে মাসে ১ লক্ষ টাকা আয় করবো” – তাহলে এটা আপনার অবচেতন মনে স্থায়ী হয়ে যাবে। এবং আপনি নিজে থেকেই এই লক্ষ্য পূরণে যা করা দরকার তাই করতে শুরু করবেন।

০৩. মনছবি বা কল্পনা

যদি কোনো মানুষকে নিশ্চিত ভাবে বিশ্বাস করানো যায় যে সে আগামী এক বছরের মধ্যে রাজা হবে,তবে আজকের থেকেই তার আচার ব্যবহার রাজার মত হয়ে যাবে। এবং সত্যিকথা বলতে এই আচার ব্যবহারই তাকে রাজা বানাবে। সুতরাং বিশ্বাস করুন আপনি পারবেন। লক্ষ্য ঠিক রাখুন, বিজয় সুনিশ্চিত।

লেখক হ্যাল ইলরোড যখন তাঁর জীবনের সবচেয়ে বাজে অবস্থায় ছিলেন, তখন সুন্দর ভবিষ্যতের কথা বার বার বলা আর তাকে কল্পনার চোখে দেখা তাঁকে আত্মবিশ্বাস ধরে রেখে কাজ করতে উ‌ৎসাহ দিয়েছে।
মনোবিজ্ঞানের ভাষায় একে বলে মেন্টাল মডেলিং।যে কোনও বিপদে মাথা ঠান্ডা রেখে কাজ করার জন্যও এই টেকনিক ব্যবহার করা হয়।
বিশ্বাস আর পরিশ্রম যে কোনও লক্ষ্যকে পূরণ করতে পারে।

০৪. ব্যায়াম

এই ব্যাপারে সবাই মোটামুটি জানেন। প্রতিদিন সকালে একটু ব্যায়াম করলে সারাদিন শরীর ও মন ভালো থাকবে।

০৫. পড়া

সকাল বেলা আমরা সবাই নিউজপেপার অথবা ফেসবুক স্ট্যাটাস পড়ি। কিন্তু দিনের শুরুতে যদি অনুপ্রেরণামূলক কিছু  
পড়ি তবে সারাদিন তা ভাল কাজ করার শক্তি জোগাবে।

৬. লেখা

প্রতিদিন কাগজ কলম নিয়ে নিজের উদ্দেশ্যে অল্প করে হলেও কিছু ভালো কথা লিখতে চেষ্টা করুন। এগুলো হতে পারে  আপনার ভবিষ্য‌ৎ নিয়ে স্বপ্নের কথা, বা আজকের দিনে কি করবেন সেই পরিকল্পনা; অথবা মেডিটেশন বা বই থেকে আজকের উপলব্ধির কথাও লিখতে পারেন। লিখে ফেলুন নিজের রুটিন। এতে আপনার কাজের প্রতি আগ্রহ বাড়বে।

মন্তব্য লিখুন :