রসুন যে কারণে খাবেন

শরীরকে সুস্থ রাখতে প্রাচীনকাল থেকেই ব্যবহৃত হয়ে আসছে রসুন। ছোট্ট এই মশলাটি বাঁচিয়ে দিতে পারে আপনার জীবন। তবে রসুনের কোয়া ছাড়িয়ে সঙ্গে সঙ্গে খেলে কিন্তু উপকারে লাগে না। বরং কোয়াটা ছাড়ানোর পর ৫ মিনিট রেখে দিন তারপর খান। এমনটা করলে কিছু এনজাইম বেরিয়ে যাওয়ার সুযোগ পাবে আর বৃদ্ধি পাবে কার্যকারিতা।

রসুনে রয়েছে প্রচুর মাত্রায় আয়রন, ক্যালসিয়াম, কপার, ম্যাগনেসিয়াম, ফসফরাস, পটাশিয়াম এবং ভিটামন-এ,বি আর সি। কোয়া অবস্থায় অথবা পানিতে দিয়ে প্রতিদিন রসুন খেলে, নানা উপকারে লাগে। যেমন, শরীরে উপস্থিত নানা ক্ষতিকর উপাদান এবং টক্সিন বেরিয়ে যায়। সেই সঙ্গে ব্যাকটেরিজনিত সংক্রমণ হওয়ার আশঙ্কাও যেমন কমে যায়। শুধু তাই নয়, লিভারের কার্মক্ষতাও বৃদ্ধি করে রসুন।
 
এছাড়া, নিয়মিত এই মশলাটি খেলে আরও নানা উপকার পাওয়া যায়। যেমন -

১.শরীরের প্রতিটি অংশে রক্ত সরবরাহ যাতে সুন্দরভাবে হয়, সেদিকে খেয়াল রাখে রসুন। সেই সঙ্গে ব্লাড কল্ট হওয়ার আশঙ্কাও কমায়।

২.ঠান্ডা জ্বরে রসুন অনেক উপকারী।

৩.পেটে যাদের খুব গ্যাস হয়, তারা যদি নিয়মিত রসুন খান তাহলে এমন ধরনের অসুবিধা ধীরে ধীরে কমে যেতে শুরু করে। তবে বেশি মাত্রায় রসুন খাওয়া একেবারেই উচিত নয়। তাই অল্প করে খাবেন। তাতেই দেখবেন উপকার পাবেন।

৪.রসুনে রয়েছে প্রচুর মাত্রায় অ্যান্টি-ক্যান্সার এজেন্ট যা ক্যান্সার প্রতিরোধে সহায়ক ভূমিকা পালন করে।

৫.ফাঙ্গাল ইনফেকশন দূর করতে কাজ করে রসুন।

৬.শরীরে বাজে কোলেস্টেরলের মাত্রা নিয়ন্ত্রণে রাখার পাশপাশি আর্টারিতে ময়লা জমে যাতে রক্ত সরবরাহ ব্যাহত না হয়, সেদিকে খেয়াল রাখে রসুন। তাই প্রতিদিন এক কোয়া রসুন আপনাকে সুস্থতা প্রদান করতে পারে সহজেই।

মন্তব্য লিখুন :