সম্পর্ক ভাঙনের জন্য দায়ী কে, নারী না পুরুষ?

ভবিষ্যতের কথা চিন্তা করেই সাধারণত নারী-পুরুষ প্রেমের সম্পর্কে জড়ায়। তবে সব সম্পর্ক চূড়ান্ত পরিণতি পায় না। এই সম্পর্ক ভাঙার পেছনে রয়েছে নানা কারণ। তবে যে কারণেই সম্পর্ক ভাঙুক না কেন সম্পর্ক ভাঙলে মন খারাপ হওয়াই তো স্বাভাবিক।

দীর্ঘদিনের প্রেমের সম্পর্কে বিচ্ছেদের নেপথ্যে সাধারণত কে বেশি দায়ী থাকে? কেনই বা জীবনের অভ্যাসে পরিণত হওয়া একটি সম্পর্ক থেকে বেরিয়ে আসতে চান কেউ? এ প্রশ্নটা সবার মনেই থাকে। সম্প্রতি বিষয়টি নিয়ে গবেষণা চালিয়েছে একটি অনলাইন মার্কেট রিসার্চ অ্যান্ড ডেটা অ্যানালিটিক্স ফার্ম। দেখি তাদের গবেষণা কি বলছে।

৭ শতাংশ পুরুষ যেখানে বলছেন, দীর্ঘদিনের সম্পর্কে ব্রেক-আপের জন্য তাঁরাই দায়ী, সেখানে মহিলাদের ক্ষেত্রে সেই হার ১৯ শতাংশ। তবে মিউচুয়াল ব্রেক-আপ কিংবা উভয়ের সম্মতিতে সম্পর্ক শেষ করার ক্ষেত্রে পুরুষ ও মহিলার সংখ্যা মোটামোটি একই। ৪৮ শতাংশ পুরুষ ও ৪১ শতাংশ মহিলা জানাচ্ছেন, পরস্পর আলোচনার মাধ্যমেই সম্পর্ক থেকে বেরিয়ে এসেছেন তাঁরা।

সমীক্ষায় অংশ নেয়া ৮৪ শতাংশ প্রেমিক বলেছেন, প্রেমে ধোকা খেয়েছেন তাঁরা। আবার ৬৭ শতাংশ প্রেমিকার মতে, নতুন পার্টনার খুঁজে পাওয়ায় ছেড়ে চলে গিয়েছেন সঙ্গী।

তবে এই সমীক্ষা দিয়ে সম্পর্ক ভাঙার পেছনে কে দায়ী সেটা বের করা সম্ভব নয়। কারণ অনেক সময়ই জীবনের প্রয়োজনে সম্পর্ক ভাঙতে হয় অনেককে। তবে যাই হোক সবারই চেষ্টা করা উচিত সম্পর্কের প্রতি শ্রদ্ধা রেখে তা টিকিয়ে রাখার চেষ্টা করা।

মন্তব্য লিখুন :