যে কারণে ব্রকলি খাবেন

অনেকটা ফুলকপির মতোই দেখতে সবুজ রঙের সবজিটির নাম ব্রকলি। দিনে দিনে এটি বেশ পরিচিত হয়েছে আমাদের দেশে। চাইনিজ জাতীয় খাবারে ব্যবহৃত অন্যতম প্রধান উপকরণ এই সবজি। দেশেও চাষ হচ্ছে ব্রকলির। কাঁচা কিংবা রান্না করে, ব্রকলি খাওয়া যায় দুইভাবেই। চলুন জেনে নেই ব্রকলির পুষ্টিগুণ।

ব্রকলিকে শক্তিশালী ক্যান্সার বিরোধী খাদ্য। এতে থাকে খনিজ, অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট।

ক্ষতিগ্রস্ত ত্বকের টিস্যু মেরামত করে এবং ত্বক উন্নত করতে ব্রকলিতে থাকা গ্লুকোরাফানিন বৈশিষ্ট্য অনন্য।

ব্রকলিতে প্রচুর পরিমাণে ফ্ল্যাভোনয়েড, লিউটেনের সঙ্গে ক্যারটিনয়েড, বিটা-ক্যারোটিন এবং জিক্সানথিন- সব শক্তিশালী অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট আছে যা অনেক গুরুতর রোগ প্রতিরোধ করে।

ব্রকলি পটাসিয়াম এবং ম্যাগনেসিয়াম সমৃদ্ধ। সুস্থ স্নায়ুতন্ত্রের যা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। এতে ক্যালসিয়ামের আধিক্য থাকায় হাড়ের জন্য এটি বেশ উপকারী।

রক্তের শর্করা নিয়ন্ত্রণে আনে ব্রকলি। এটি চিনির প্রভাব রোধ করে ও রক্তে শর্করার মাত্রা কম রাখে। ব্রকলি ফাইবার সমৃদ্ধ।

মানসিক চাপ কমাতে ব্রকলি খাওয়া যেতে পারে নিয়মিত। ব্রকলি স্প্রাউটসের জুস পান করলে শরীরে এক ধরনের কেমিক্যাল তৈরি হয় যা বায়ুদূষণ থেকে তৈরি কিছু ঝুঁকি কমিয়ে দিতে সাহায্য করে।

ব্রকলিতে প্রচুর পরিমাণে দ্রবণীয় ফাইবার থাকে। যা শরীর থেকে কোলেস্টেরল বের করে দেয়।

ব্রকলি একটি প্রাকৃতিক ডেটক্স যা পেট এবং পাচনতন্ত্র পরিষ্কার রাখে।

মন্তব্য লিখুন :