জেনে নিন কেন নিয়মিত পেয়ারা খাবেন?

শীতকালীন ফল পেয়ারা অনেক সুস্বাদু ও সহজলভ্য বিধায় সকলেরই বেশ পছন্দের। পাকা ও কাঁচা দুভাবেই এই ফলটি খাওয়া যায়। তবে গাছ থেকে পারার পর দুই দিনের মধ্যে খেলে পেয়ারার আসল স্বাদ ও পুষ্টি পাওয়া যায়। দিনে অন্তত একটি পেয়ারা আপনাকে দেহকে রাখবে সুস্থ ও রোগমুক্ত। জেনে নিন দেহকে সুস্থ রাখতে পেয়ারার ৬ টি অনন্য উপকারিতা।

উচ্চ রক্তচাপ রোধে

পেয়ারা উচ্চ রক্তচাপ রোধে অনেক বেশি কার্যকরী। পেয়ারাতে রয়েছে পটাশিয়াম যা দেহে উচ্চ রক্ত চাপের জন্য দায়ী সোডিয়াম এর প্রতিক্রিয়া দূর করতে সহায়তা করে। এতে করে রক্ত সঞ্চালনের মাত্রা স্থির থাকে। ডাক্তারদের মতে উচ্চ রক্তচাপের রোগীদের সপ্তাহে ৫টি পেয়ারা খাওয়া অত্যন্ত জরুরী। এতে করে কোলেস্টরলের মাত্রা ঠিক থাকে।

ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণে

পেয়ারার ফাইবার রক্তের চিনি শুষে নেয়ার ক্ষমতা রাখে। ডায়েট এক্সপার্ট ও ডাক্তাররা বলেন যে খাবারে প্রতি ১০০ গ্রামে ৫.৪ গ্রাম ফাইবার থাকে সে খাদ্যগুলো রক্তের সুগার শুষে নিয়ে দেহকে ডায়াবেটিসের মাত্রা বাড়ার হাত থেকে রক্ষা করে। এছাড়াও পেয়ারার এই ফাইবার কোষ্ঠকাঠিন্য দূর করতে সহায়তা করে।

স্কিন ক্যান্সার প্রতিরোধ

পেয়ারায় রয়েছে উচ্চ মাত্রার ভিটামিন সি। একটি কমলালেবুর চেয়ে বেশি পরিমাণ ভিটামিন সি রয়েছে একটি পেয়ারাতে। পেয়ারার ভিটামিন সি চামড়ার ইনফেকশনের অস্বাভাবিক বৃদ্ধি রোধ করে ও ত্বকে ক্যান্সার প্রতিরোধী স্তর গঠন করে। ফলে ত্বক ক্যান্সারের হাত থেকে রক্ষা পায়।

বুদ্ধি বৃদ্ধিতে করে

শিশু বিশেষজ্ঞদের মতে শিশুদের বুদ্ধি বিকাশে পেয়ারার সব চাইতে বেশি কার্যকরী। পেয়ারায় রয়েছে ভিটামিন বি৩ ও নিয়াসিন যা মস্তিষ্কের রক্ত সঞ্চালনের ভারসাম্য বজায় রাখে ও মস্তিষ্কের কার্যক্ষমতা বাড়ায়। পেয়ারার ভিটামিন বি৬ ও পিরিয়ডক্সিন মস্তিষ্কের নার্ভের কর্মক্ষমতা বৃদ্ধিতে সহায়তা করে।

চোখের সুরক্ষায় পেয়ারা

পেয়ারায় আছে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন এ যা চোখের সুরক্ষায় অতি কার্যকরী। ভিটামিন এ রাতকানা রোগ সহ চোখের ক্ষীণ ও দীর্ঘদৃষ্টি সহ সকল রোগ প্রতিরোধে সহায়তা করে। ডাক্তাররা ছোট শিশুদের ছোটকাল থেকেই পেয়ারা খাওয়ার অভ্যাস গড়ে তোলার পরামর্শ দিয়ে থাকেন চোখের সুরক্ষার জন্য।

ত্বকের যত্নে

মুখের ত্বকের বয়েসের ছাপ দূর করতে পেয়ারার জুড়ি নেই। ডারমাটোলজিস্টদের মতে দিনে অন্তত ১ টি পেয়ারা খেলে আপনি আপনার ত্বককে দ্রুত বুড়িয়ে যাওয়া থেকে রক্ষা করতে পারবেন। পেয়ারার ভিটামিন সি ও ই এবং আস্ট্রিঞ্জেন্ট ও অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট ত্বককে পুষ্টি যোগায় ও ভেতর থেকে ত্বকের ক্ষতি দূর করে। এবং সূর্যের ক্ষতিকর আলট্রা ভায়োলেট রশ্মি থেকে ত্বককে রক্ষাকারী ‘লাইকোপেন’ ও রয়েছে পেয়ারাতে।

মন্তব্য লিখুন :