প্রত্যহ দুটির বেশি কোমল পানীয় হৃদরোগের ঝুঁকি বাড়ায়

কোমল পানীয় খেতে পছন্দ করেন অনেকে। এমনো হয় প্রতিদিন দুটির বেশি কমল পানীয় খান অনেকে। তবে আপনি জানেন কি? প্রতিদিন দুটির বেশি কোমল পানীয় আপনার মৃত্যুর ঝুঁকি বাড়ায়।

হার্ভার্ডের গবেষণা বলছে, প্রতিদিন দুটির বেশি কোমল পানীয় খেলে আগাম মৃত্যুর ঝুঁকি বেড়ে যেতে পারে ২১ শতাংশ।

নতুন একটি গবেষণায় দেখা গেছে, আপনার আগাম মৃত্যুর ঝুঁকি বাড়িয়ে দেবে চিনি দিয়ে বা কৃত্রিম মিষ্টি দিয়ে তৈরি পানীয়। কারণ এসব খাবার খাওয়ার কারণে হৃদরোগ এবং কয়েক ধরনের ক্যানসারের আশঙ্কা বেড়ে যায়।

হার্ভার্ড ইউনিভার্সিটির টিএইচ চ্যান স্কুল অব পাবলিক হেলথের পরিচালিত ওই গবেষণাটি গত মাসে প্রকাশিত হয়। গত ৩০ বছর ধরে সারা বিশ্বের ৩৭ হাজার পুরুষ এবং ৮০ হাজার নারীর ওপর এই গবেষণাটি পরিচালিত হয়।

গবেষণায় দেখা যায়, চিনি দিয়ে তৈরি হয়েছে এমন পানীয় খাওয়ার কারণে অন্য কোনো কারণ ছাড়াই তাদের আগাম মৃত্যুর ঝুঁকি বেড়ে গেছে।

গবেষক ও প্রধান লেখক ভাসান্তি মালিক এক বিবৃতিতে বলেন, যেসব ব্যক্তি মাসে একবার এ রকম চিনি দিয়ে তৈরি পানীয় পান করেন তাদের তুলনায় যারা মাসে চারবার পর্যন্ত পান করে, তাদের আগাম মৃত্যুর ঝুঁকি ১ শতাংশ বেড়ে গেছে।

এছাড়া যারা সপ্তাতে ২ থেকে ৬ বার পান করে, তাদের বেড়েছে ৬ শতাংশ, আর যারা প্রতিদিন এক থেকে দুবার চিনির পানীয় খায়, তাদের বেড়েছে ১৪ শতাংশ। যারা প্রতিদিন দুবারের বেশি এ রকম চিনি দিয়ে তৈরি পানীয় পান করে, তাদের আগাম মৃত্যুর সম্ভাবনা বেড়েছে ২১ শতাংশ।

গবেণায় আরও দেখা গেছে, যারা চিনি দিয়ে তৈরি পানীয় খেয়েছেন, তাদের আগাম হৃদরোগ ও কিছু ক্যানসার হওয়ার ঝুঁকি তৈরি হয়েছে।আর তাই এটা উদ্বেগজনক যে সারা বিশ্বে কোমল পানীয় পানের প্রবণতা বাড়ছে।

স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞদের একটি বড় উদ্বেগের কারণ হচ্ছে, চিনিযুক্ত কোমল পানীয় প্রভাব শিশু ও তরুণদের ওপর যেসব প্রভাব ফেলছে। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার হিসাবে, বিশ্বে ৫ থেকে ১৯ বছর বয়সীদের মধ্যে স্থূলতার হার ১৯৭৫ সালেও ছিল ১১ মিলিয়ন, ২০১৬ সালে তা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১২৪ মিলিয়ন।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার সুপারিশ হলো, প্রতিদিন ৫০ গ্রামের বেশি চিনি খাওয়া উচিত নয়।

মন্তব্য লিখুন :