মেয়েদের কোমর প্রশস্ত হয় যে কারণে, প্রতিকার

বয়স ৩০ ছুঁলেই মেয়েদের কোমর ভারী হওয়ার প্রবণতা দেখা যায়। এই কোমরের বহরই বলে দেয় আপনার বয়স ঠিক কত। প্রশস্ত কোমরের সমস্যা রয়েছে অনেক। তখন আপনি চাইলেই সব ধরনের কাপর পরতে পারবেন না। দেখতেও কিচুটা অন্দভুত দেখাবে। যা নিয়ে শুনতে হয় কটূক্তিও।

গবেষকরা বলছেন, ভুল খাবার আর আলস্যের কারণেই কোমরের প্রস্থ বাড়ে। সফট ড্রিঙ্ক, অনিয়মিত ঘুম, স্ট্রেস, ভুল ভঙ্গিতে দাঁড়ানো, বসা এবং হাঁটাচলা, টিভি দেখতে দেখতে মুখ চালানোর বদভ্যেস কোমরে মেদ জমায়। তাছাড়া নিয়মিত হাঁটাচলা না করাও কোমর প্রশস্ত হওয়ার অন্যতম কারণ।

প্রাতরাশে বাদাম, আখরোট, ফল, ছোলা থাক। সঙ্গে দুটো ডিমের সাদা অংশ আর কলা চটকানো ওটস। সাড়ে দশটা নাগাদ খান অর্ধেক আপেল, ফলের রস বা এক কাপ মাঠাতোলা দুধ। মধ্যাহ্নভোজনে ছোট এক বাটি ভাত বা তিনটি রুটি, ১৫০ গ্রাম চিকেন বা দু’পিস মাছ, হালকা তেলে সাঁতলানো আনাজ বা মুগ ডাল। সঙ্গে টকদই আর স্যালাড।

মেদ ঝরাতে সবচেয়ে কার্যকর জোর বাড়ানোর ব্যায়াম। ওজন নিয়ে পায়ের ব্যায়াম করলে দৌড়ানো বা হাঁটার চেয়েও বেশি ফল পাবেন। তাই স্কোয়াট (শরীর আধখানা ভেঙে উবু হয়ে বসা), লাঞ্জ (এক হাঁটু মুড়ে বসা), স্টেপ আপ (বাক্স বা সিঁড়িতে ওঠানামা) করে পা শক্তপোক্ত করুন। শরীরের মধ্যভাগ আপনিই টানটান হবে।

দিনে ২০-২৫ মিনিট সাঁতার কাটুন। হাতে বোতল নিয়ে সিঁড়ি ভাঙুন।

তাহলে উপায়। চিকিৎসকরা বাতলে দিয়েছেন কীভাবে কোমর নিয়ন্ত্রণের মধ্যে রাখা যাবে।

শেপ রাখতে অনেকে র‌্যাপ, থার্মার দিয়ে পেট বেঁধে রাখেন। ব্যবহারের আগে চিকিৎসকের পরামর্শ নিন

ইলাস্টিক করসেট পরতে পারেন। পেটের মাপ কম দেখায়, মাংসপেশিকে শক্ত রাখে। তবে টানা অনেকক্ষণ পরবেন না

লো ওয়েস্ট ডেনিমে বেলিফ্যাট নিয়ন্ত্রণ শক্ত। তবে ফিরছে হাই ওয়েস্ট ডেনিম আর প্যান্টস। এগুলি সুদৃশ্য বড় বেল্ট দিয়ে পরুন

কোনও দিন রুটিন ভেঙে চেটেপুটে খেলে একটু বেশিক্ষণ সিঁড়ি ভাঙুন

কুঁজো হয়ে বা গা এলিয়ে নয়। টানটান সোজা হয়ে বসুন। ব্যথা কম হবে। পেট টাইট রেখে হাঁটার চেষ্টা করুন।


মন্তব্য লিখুন :