যেভাবে চিনবেন নকল প্রসাধনী

ত্বক সুন্দর রাখতে প্রসাধনী ব্যবহার করি আমরা। তবে মেয়াদ নেই এমন প্রসাধনীতে বাজার সয়লাভ। মেয়াদ নেই এমন প্রসাধনী যদি ব্যবহার করেন তবে তা আপনার ত্বকের জন্য ভয়াবহ ক্ষতিকর।তাই নকল ও মেয়াদ নেই এমন প্রসাধনী কখনোই কিনবেন না।

শপিংমল থেকে মেয়াদ নাম না-জানা বিভিন্ন ধরনের ক্রিম মেখে থাকেন নারীরা। তবে মেয়াদ ছাড়া যেসব ক্রিম বাজারে বিক্রি করা তা ত্বকের জন্য মারত্নক ক্ষতিকর। এমনকি মুখে ক্যানসার পর্যন্ত হয়ে থাকে।এখন প্রশ্ন হচ্ছে নকল প্রসাধনী কীভাবে চিনবেন বা মেয়াদ যাচাই কীভাবে করবেন।

বাজার থেকে প্রসাধনী কিনতে হলে অবশ্যই মেয়াদ দেখে কিনতে হবে। আসুন জেনে নেই কীভাবে বুঝবেন প্রসাধনীর মেয়াদ আছে কি না।প্রসাধনীর মেয়াদ চেনার ক্ষেত্রে কিছু সংকেতের খেয়াল করতে হয়।

আসুন জেনে নেই যেভাবে বুঝবেন প্রসাধনীর মেয়াদ।

প্রসাধনীবিষয়ক একটি ওয়েবসাইটের প্রতিবেদনে জানানো হয়, প্রসাধনী কেনার সময় প্রথমে নজর রাখতে হবে এর লেবেলে।এছাড়া অন্য সংকেতগুলোর মধ্যে খুঁজতে হবে একটি কৌটার মতো দেখতে সংকেত। এই সংকেতের মধ্যে এক বা একাধিক সংখ্যা লেখা থাকে।।

সংকেতটির অর্থ হল- প্রসাধনীর প্যাকেট বা কৌটা খোলার পর কত মাস পর্যন্ত তা ব্যবহার করা যাবে। একটি নির্দিষ্ট পণ্য কতদিন পর্যন্ত ব্যবহার করা নিরাপদ তা ইঙ্গিত করে মেয়াদ উত্তীর্ণের তারিখ।

আর কৌটার মতো দেখতে সংকেতটির মধ্যে লেখা সংখ্যাটি ইঙ্গিত করে কৌটা বা প্যাকেট খোলার পর এবং মেয়াদ উত্তীর্ণ হওয়ার আগেই কতমাসের মধ্যে তা ব্যবহার করতে হবে।

তবে কৌটা সংকেতের মধ্যে যদি '6M' যার অর্থ ছয় মাস, লেখা থাকে তবে প্যাকেট খোলার ছয় মাসের মধ্যেই তা ব্যবহার করে শেষ করতে হবে।একই ভাবে লেখা থাকতে পারে '12M' বা '24M'।এই ছয়মাস পার হওয়ার পর পণ্যটির ব্যবহার করা উচিত হবে না।

মন্তব্য লিখুন :