যৌন মিলনে স্থায়ীত্ব-ক্ষমতা বাড়বে যে চা খেলে

গিনসেং চা’তে কোন চা পাতা থাকে না, বরং জুজুবে ফল এবং কোরিয়ান চেস্টনাটসের সাথে জিনসেং শিকড় মিশিয়ে তৈরি হয়। কোরিয়ায় বাচ্চা থেকে বুড়ো সকলেই এই চা খায়। শক্তি বুস্টার হিসাবে পরিচিত এই পানীয় শতাব্দী ধরে কোরিয়ানদের কাছে ভীষণ গুরুত্বপূর্ণ।

ওজন হ্রাস: এই চা ওজন হ্রাসে সাহায্য করতে পারে, কারণ এটি প্রাকৃতিকভাবে খিদে নিয়ন্ত্রণ করে।

হাইপারটেনশন নিয়ন্ত্রণ: গিনসেং চাকে হাইপারটেনশন বা উচ্চ রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণের জন্য প্রাকৃতিক প্রতিকার বলা হয়।

হরমোনের ভারসাম্য পুনরুদ্ধার: এই চা নারীদের জন্য বিশেষভাবে ভালো। হরমোন ভারসাম্য বজায় রেখে স্তন ক্যান্সার, এন্ডোমেট্রিওসিস এবং হরমোন ভারসাম্য দ্বারা সৃষ্ট অন্য সমস্যা দূর করে।

শরীর ও মস্তিষ্ককে পুনরুজ্জীবিত করে: এই চা পান করার পরে অনেক মানুষের মস্তিষ্কের দক্ষতা বেড়েছে এবং মনোযোগও বৃদ্ধি হয়েছে। গিনসেং একটি অ্যাডাপ্টোজেন, যা চাপপূর্ণ পরিস্থিতিতে সহ্য করার জন্য ব্যবহার করা যেতে পারে।

অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট সমৃদ্ধ গিনসেং মশলার রাসায়নিক বিক্রিয়া প্রদাহ সমস্যায় সমাধান করে ত্বকের স্বাস্থ্য ভালো রাখে।

প্রতিরক্ষা ক্ষমতা শক্তিশালী করে: গিনসেং চা ঠান্ডা লাগা ও ফ্লুয়ের বিরুদ্ধে লড়াই করার জন্য ঐতিহ্যবাহী ওষুধ হিসাবে ব্যবহৃত হয় এবং এটি রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতাকে শক্তিশালী করার জন্য পরিচিত। ক্ষতিকারক ব্যাকটেরিয়া এবং ভাইরাসের বিরুদ্ধে অ্যান্টিবডি প্রতিক্রিয়া বাড়ায় এটি।

যৌন স্বাস্থ্য উন্নত করে: যৌন স্বাস্থ্য বজায় রাখার জন্য কোরিয়ায় পুরুষরা গিনসেং চা এবং ওয়াইন খান। এই চা উদ্ভিদ উৎস থেকে প্রাপ্ত ফাইটো টেস্টোস্টেরনের উৎস।

মন্তব্য লিখুন :